https://tipswali.com/wp-content/uploads/2020/08/গর্ভবতী.jpg
Spread the love

প্রায় প্রতিটি মেয়ের জীবনে মা হওয়ার বাসনা থাকে। আর পুরুষ সঙ্গীর সহবাসের মাধ্যমে একটি মেয়ে গর্ভবতী হয়ে এক পর্যায়ে সন্তান প্রসাব করে ও প্রিয় সন্তানের মুখ দেখে। প্রিয় ভিজিটর, আজকের লেখায় আপনাদের সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি প্রেগনেন্ট  বা গর্ভবতী হওয়ার সহজ উপায় ও কিছু টিপস নিয়ে। আশা করছি এই টিপসগুলো আপনাকে সহজে গর্ভবতী বা প্রেগনেন্ট হতে সাহায্য করবে।

আপনার মাসিক চক্রের সময় জানুন

সাধারণত মেয়েদের পিরিয়ডের প্রথম দিনগুলি প্রতি মাসে একই সংখ্যক দিন পরপর আসে, যা নিয়মিত বিবেচিত হয়। আপনি যদি গর্ভবতী হতে চান তাহলে আপনাকে এই দিনগুলো খেয়াল রাখা উচিত। তবে অনেকের অনিয়মিত পিরিয়ড হয়ে থাকে।

আপনি ক্যালেন্ডার দেখে তারিখ মনে রাখতে পারেন। আর এর মাধ্যমে একজন মহিলা ভালো ভাবে মনে রাখতে পারে কোন সময় তার ওভুলেশন হবে। গর্ভবতী হওয়ার সবচেয়ে ভাল সময় হচ্ছে ওভুলেশন বা ডিম্বস্ফোটন।

ডিম্বস্ফোটন হ’ল প্রক্রিয়াটির প্রতিটি মাসিক চক্রের মধ্যে সাধারণত একবার হয় যখন হরমোনের পরিবর্তনগুলি ডিম্বাশয়ে ডিম ছাড়ার জন্য ডিম্বাশয়ে ট্রিগার করে। এই সময়ে কিছু মহিলা ব্যথার একতরফা টোটও অনুভব করতে পারে। আর এই সময়টি সহবাস করার দিকে মনোনিবেশ করার সময়। আপনার সঙ্গীকে জড়িয়ে শুয়ে থাকুন ভালো লাগবে।

পজিশন নিয়ে উদ্বিগ্ন হবেন না

অনেক প্রচলিত কাহিনীতে গর্ভবতী হওয়ার জন্য পজিশন বেশ গুরুত্ব দেওয়া হয়। তবে এক এক জন একেক পজিশনে সহবাস করতে পছন্দ করে ও সুখ অনুভব করে।

সহবাসের আপনি কোন পজিশনে সহবাস করলেন সে নিয়ে বেশি মাথা ঘামানোর কিছুই নেই। আপনি যে পজিশনে বেশি সুখ পান সেই পজিশনেই সহবাস করুন। কিছু মাধ্যাকর্ষণ-বিঘ্নিত অবস্থান, যেমন বসে বা দাড়িয়ে সহবাস করলে, শুক্রাণু উপরের দিকে প্রবাহিত  হওয়ায় বাধাগ্রস্থ হতে পারে।

সহবাসে পর বিছানায় থাকুন

আপনার গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ানোর জন্য যৌনমিলনের পরে পা হালকা ছড়িয়ে রেখে বিছানায় শুয়ে থাকুন। তবে পা উপরে তুলে শুয়ে থাকার দরকার নেই। অনেকেই মনে করে পা উপরের দিকে তুলে রাখলে বীর্য দ্রুত বা সহজে ছড়িয়ে যায়।

১০ থেকে ১৫ মিনিট এমনি শুয়ে থাকলে শুক্রাণু আপনা আপনিই জরায়ুতে থাকবে। এ নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। তবে সহবাস করার পর ১৫ মিনিটের মধ্য বাথরুমে যাওয়া হতে বিরত থাকুন।

মাত্রারিতিক্ত সহবাস করার দরকার নেই

ডিম্বস্ফোটনের সময়ও প্রতিদিন সেক্স বা সহবাস করা আপনার গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ায় না। সাধারণভাবে, ওভুলেশনের সময়ের প্রায় প্রতিটি রাত আপনার গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা বাড়াতে সহায়তা করে। শুক্রাণু আপনার দেহের ভিতরে ৫ দিন পর্যন্ত বাঁচতে পারে। তাই প্রেগনেন্ট বা গর্ভবতী হতে ওভুলেশনের সময় সহবাস করুন এবং অন্যান্য দিনগুলোতে বিরত থাকা উত্তম।

চাপ মুক্ত থাকুন

পারিবারিক চাপে কিংবা মানুসিক ভাবে আপনি অনেক সময় হতাশ হয়ে পড়তে পারেন। আপনার পুরুষ সঙ্গীর সাহায্য নিন। তার চোখে চোখ রাখুন তাকে বলুন- তুমি পারবে, উপভোগ করো, সব কিছু সময় মতো হবে। এটি আপনার গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা বাড়াতে সহায়তা করে। স্ট্রেস ডিম্বস্ফোটনে বা ওভুলেশনে ব্যাঘাত করতে পারে।

এলকোহল হতে দূরে থাকুন

গর্ভবতী হওয়ার চেষ্টা করার সময় অত্যধিক অ্যালকোহল পান করা স্মার্ট নয়, সামান্য এক গ্লাস ওয়াইন অনেক ক্ষতি করবে না। তবে যতদূর সম্ভব না করাই ভালো।

টাইট পোষক না পড়া ভালো

টাইট ফিটিং পোশাক পড়ে সহবাস করলে আপনার মানুষিক প্রশান্তিতে ব্যাঘাত ঘটবে। সহবাসের সময় সম্পূর্ণটা উপভোগ্য করে তোলার চেষ্টা করুন। এমনকি টাইট-ফিটিং পোশাক শুক্রাণু গণনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।

আপনার পুরুষ সঙ্গীর প্রতি যত্ন নিন

আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আর তা হচ্ছে, এক গবেষণায় দেখা গেছে যেসকল পুরুষরা হ্যান্ডস-ফ্রি ডিভাইস ব্যবহার করে এবং তাদের ফোনটি তাদের অণ্ডকোষের কাছে রাখে তাদের শুক্রাণুর গুণ অন্যদের তুলনায় পাতলা। যে পুরুষরা প্রচুর সয়া খাবার খান তাদের শুক্রাণুর ঘনত্ব তুনামুলক কম হতে পারে। সঙ্গীকে পুষ্টিকর খাবার খাওয়ানোর পাশাপাশি আপনার সাথে সহবাসে তাকে আকৃষ্ট করে তুলুন। তার চোখে চোখ রাখুন।

আপনার পুরুষ সঙ্গীর ধূমপানের অভ্যাস আপনার গর্ভবতী হওয়ার ক্ষেত্রে অন্যতম বাধার কারন হতে পারে। হিলার্ড বলেন- ধূমপান নামক বাজে অভ্যাস আপনার বীর্যের গুনাগুন নষ্ট করে দেয়।

স্বাস্থ্যকর জীবন যাপন করুন

কথায় আছে সাস্থ্যই সম্পদ। পর্যাপ্ত পরিমান পুষ্টিকর খাবার গ্রহন করুন। পাশাপাশি ওজন ঠিক রাখতে ও সুস্থ থাকতে নিয়মিত ব্যায়াম করুন। তবে অতিরিক্ত ব্যায়াম করলে আপনার ওভুলেশনে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে।

ফলিক অ্যাসিড গর্ভাবস্থার প্রাথমিক পর্যায়ে কাজ করে, তাই গর্ভবতী হওয়ার আগেই আপনি পর্যাপ্ত ফলিক অ্যাসিড পাচ্ছেন কিনা তা নিশ্চিত করা গুরুত্বপূর্ণ। – পল হিলার্ড, স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটি।

সাধারণত ২৮ দিন পর পর পিরিয়ড হয়ে থাকে অনেক সময় কম বেশি হতে পারে। তবে আপনি যদি আগে থকেই প্রচুর ব্যায়াম করেন এবং আপনার নিয়মতি পিরিয়ড হয় তাহলে কোন সমস্যা নেই। পিরিয়ড কালিন সময় পরিষ্কার পরিছন্ন থাকুন। অনেকে শুকনা কাপড় ব্যবহার করে তবে স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যাবহার করা উত্তম।

গর্ভবতী হতে কতো সময় লাগে?

প্রায় ৮৫ শতাংশ নারি যৌন সঙ্গমের বা সহবাসের ১ বছরের মধ্যেই গর্ভবতী হয়ে ওঠে। তবে কোন কোন দম্পত্তির জন্য অনেক সময় দুই বছর পর্যন্ত সময়ও লাগতে পারে। এ নিয়ে অবাক বা হতাশ হওয়ার কিছু নেই।

গর্ভবতী হওয়ার লক্ষনসমূহ কি?

আজকাল প্রেগনেন্সি চেক করার জন্য ডাক্তারের কাছে যাওয়ার দরকার হয় না। আপনি বাসায় বসেই প্রেগন্যান্সি স্ট্রিপ দিয়ে চেক করে জানতে পারেন আপনি গর্ভবতী কিনা। প্রায় সকল ঔষধের দোকানে প্রেগন্যান্সি স্ট্রিপ পাওয়া যায়। গর্ভবতী বা অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার লক্ষন গুলো নিচে দেওয়া হলো:

মাথা ঘোরা বা বমি ভাব

আপনি আপনার নানি-দাদিদের কাছে হয়তো এ কথা শুনে থাকবেন। গর্ভবতী হওয়ার পর বিশেষ করে সকাল বেলা ঘুম থেকে ওঠার পর প্রচণ্ড দুর্বলতা, মাথা ঘোরা কিংবা বিষণ্ণতা লাগতে পারে। এটি গর্ভবতী হওয়ার একটি অন্যতম লক্ষন। কিছু কিছু সময় অনেকের কোষ্ঠকাঠিন্যও হয়ে থাকে। ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

পিরিয়ড বন্ধ হওয়া

সাধারণত ২৮ দিন পর পর পিরিয়ড হয়ে থাকে। তবে আপনি প্রেগনেন্ট হয়ে গেলে আপনার পিরিয়ড বন্ধ হয়ে যাবে। আবার অনেকের সামান্য রক্তপাত বন্ধ হয়ে যায়। আর এমন হলে আপনি প্রেগনেন্সি চেক করুন।

স্তনের আকার পরিবর্তন

স্তনের আকার পরিবর্তন হওয়া গর্ভবতী বা অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার অন্যতম লক্ষন। গর্ভধারণের পর মেয়েদের স্তনের আকার কিছুটা বড় হয়ে যায় এবং নিপল গাড় রঙ ধারন করে।

কিছু কথা

প্রিয় পাঠক/পাঠিকা গর্ভবতী বা অন্তঃসত্ত্বা হওয়া না হওয়া সম্পূর্ণ উপরওয়ালার ইচ্ছা। আমরা আপনাদের কেবল মাত্র কিছু টিপস শেয়ার করলাম। ধীর-স্থির থাকুন। সঙ্গীকে সাহস দিন, তাদের সাথে মধুর সম্পর্ক রাখুন। বিশেষ করে পুরুষদের বলছি, প্রত্যেকটি মেয়েই মা হওয়ার স্বপ্ন দেখে। আর আপনাদের উচিত সেই স্বপ্ন সঠিক ভাবে বাস্তবায়নে পাশে থাকা।

দেখা যায় অনেকের বিয়ের বহু বছর পর সন্তান হয়। যা কিনা সম্পূর্ণ উপরওয়ালার ইচ্ছা আপনি চাইলে অন্য কাউকে নিয়ে আসতে পারেন। তবে তিনি চাইলেই আপনার বাবার মুখ দেখা হবে না। তাই সৃষ্টি কর্তার প্রতি ভরসা রাখুন তিনি যা করেন ভালো মনে করেই করেন।

গর্ভবতী মায়েদের প্রতিদিনের খাবার তালিকা 

বাংলা ভাষায় সাস্থ্য, বিউটি, রান্না সহ হাজারো টিপস পেতে নিয়মিত ভিজিট করুন আপনাদের প্রিয় টিপসওয়ালী ডট কম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *