https://tipswali.com/wp-content/uploads/2020/09/স্মার্ট-টিভি.jpg
Spread the love

স্মার্ট টিভি কি অথবা স্মার্ট টিভি কেনার টিপস খুঁজছেন? বাংলাদেশের বাজারে স্মার্ট টিভির দাম কেমন? আজকের লেখায় শেয়ার করতে যাচ্ছি স্মার্ট টেলিভিশন কি, কেনার টিপস ও বাংলাদেশের বাজারে জনপ্রিয় টেলিভিশন ব্রান্ডের দামের রেঞ্জ কেমন সে বিষয়ে বিস্তারিত।

টিভির সেকাল

বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি ঘরেই টেলিভিশন বা টিভি দেখতে পাওয়া যায়। স্মার্ট টিভি কেনার টিপস বলার আগে আপনাদের একটু গল্প বলি, আমাদের ছোট বেলার গল্প। সেই কাদামাখা শৈশবে সাদাকালো টেলিভিশনই ছিল টিভি অনুষ্ঠান উপভোগের একমাত্র সম্বল। সারা গ্রামজুড়ে একটি টিভি আবার যে সকল এলাকায় বিদ্যুৎ ছিল না ব্যাটারি দিয়েই টেলিভিশন চালানো হতো। আবার কিছু কিছু এলাকায় হয়তো টেলিভিশনের দেখাও মিলত না।

বাড়ির মধ্যে ১৩ টি ঘর একটি মাত্র সাদাকালো টেলিভিশন। আর বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার সবাই একসাথে বসে বিটিভির বাংলা ছায়াছবি, শুক্রবারে আলিফ-লায়লা, হাতেম তাই, ধারাবাহিক নাটক উপভোগ করতো। সে সময় টিভি কেনার সামর্থ্যও সবার ছিল না। এর পরে আসে সিডি প্লেয়ার ভাড়া করে ছবি উপভোগ করার সে দিনগুলো আহা মনে পড়লেই কেমন জানি বুকের মধ্যে হু হু করে ওঠে। আজকের এই ৪২ ইঞ্চির ঝকঝকা টেলিভিশনে অনেক কালারের কিংবা ক্যামেরার বিভিন্ন এঙ্গেলে নানা ভাজ ভঙ্গী দেখেও সেই স্বাদ পাই না।

যাহোক, মূল প্রসঙ্গে আসি। প্রিয় পাঠক, আজকের লেখায় শেয়ার করতে যাচ্ছি স্মার্ট টিভি বা টেলিভিশন কেনার কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস। আশা করছি আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাকে একটি ভালো মানের ও দীর্ঘ দিন ব্যবহার করা যাবে এমন একটি টেলিভিশন কিনতে সাহায্য করবে। তো এর আগে চলুন স্মার্ট টিভি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

স্মার্ট টিভি কি?

স্মার্ট টিভি হচ্ছে টেলিভিশনের সর্বশেষ সংস্করণ। যা ইন্টারনেট মিডিয়া, হোম-নেটওয়ার্ক ও অন-ডিমান্ড স্ট্রিমিং এর সমন্বয়ে তৈরি বিশেষ প্রযুক্তি। যেখানে আপনি একই সাথে লাইভ স্ট্রিমিং, গেমস, ইন্টারনেট ব্রাউজ সহ নানা ফিচার উপভোগ করতে পারবেন।

বাংলাদেশে স্মার্ট টিভির দাম কেমন?

বাংলাদেশের বাজারে ৮ হাজার ( চাইনিজ লোকাল টিভি ব্রান্ড ) টাকা থেকে ৭৮ লাখ দামের স্মার্ট টিভি পাওয়া যায়। তবে ২০০০০ টাকা বাজেট রাখলে আপনি মোটামুটি ভাল মানের স্মার্ট টিভি কিনতে পারবেন। বাংলাদেশের বহুল পরিচিত কয়েকটি স্মার্ট টিভি কোম্পানি নাম হচ্ছেঃ সনি, এলজি, মিনিস্টার, ওয়াল্টন, স্যামসাং, ট্রান্সটেক, ভিশন।

প্রিয় পাঠক, চলুন কথা না বাড়িয়ে একে একে স্মার্ট টিভি কেনার টিপসগুলো জেনে নেওয়া যাক। আশা করছি স্মার্ট টিভি কেনার এই টিপসগুলো আপনাকে একটি সেরা ও উন্নতমানের টিভি পছন্দ করতে সাহায্য করবে।

১. টিভি কেনার জন্য আপনার বাজেট কেমন

বিগত তিন চার বছরে টিভির দামে বিশাল একটা পরিবর্তন এসেছে। তবে আপনার বাজেটের উপর নির্ভর করবে আপনি কেমন কনফিগারেশন পাবেন। একটু বেটার কন্ট্রাস্ট, শার্প কালার, পারফেক্ট ব্রাইটনেস এবং অবশ্যই বেশি দিন সার্ভিস দিতে সক্ষম কোন টিভি পেতে চাইলে আপনাকে একটু বেশি বাজেট রাখতে হবে।

বাজারে আজকাল অনেক কম দামে চাইনিজ ব্রান্ডের স্মার্ট ও এলইডি টেলিভিশন পাওয়া যায়। কথায় আছে না! সস্তার তিন অবস্থা। এই সকল টেলিভিশনের নানাবিদ খারাপ ইফেক্ট রয়েছে, বিশেষ করে কালার ও ব্রাইটনেস এর ব্যাপক তারতম্য দেখা যায়। এছাড়াও ক্ষতিকর রশ্মি আপনার চোখ ও ত্বকের ক্ষতি সাধন করতে পারে। আর এসকল ঝামেল থেকে বাঁচতে ভালো কোন ব্রান্ডের টিভি কেনার পরামর্শ রইলো।  আপনার হাতে হয়তো একটা ভালো বাজেট থাকতে নাও পারে। প্রয়োজনে একটু সময় নিয়ে কিনুন।

২. কোন সাইজের টিভি কিনবেন

আমাদের ঘরে যখন প্রথম টিভি কেনা হয় TV কোন জায়গায় রাখবো সেটা নিয়ে বেশ বিড়ম্বনায় পড়তে হয়েছিল। আমি সামনের রুমে বসে পরতাম পৃথিবী উল্টে গেলেও তো আম্মু আমার পড়ার টেবিলের কাছে TV রাখবে না। শেষমেশ শোকেসের উপরে রাখা হয়েছিল যাতে করে ঘরের মধ্যে খাটের উপর বসে আর চেয়ারে বসে সবাই টিভি দেখতে পারে।

যাহোক, আপনার ঘরের স্পেস অথবা আপনি যেখানে TV সেট করতে চাইছেন সেখানে কোন আকারের টিভি বসানো যাবে সেদিক বিবেচনা করে টিভি কিনুন। না হয় বিড়ম্বনায় পড়তে হবে।

৩. এলইডি না ওলেড কোন টিভি কেনা উচিত

এলইডি না ওলেড কোনটি সিলেক্ট করবেন? চলুন সহজে ক্লিয়ার করে দেই। সেরা পিকচার কয়ালিটির জন্য ওএইলডি এর দাম তুলনামূলক বেশি। পরিবর্তে, একটি OLED 4K টিভিতে প্রতিটি একক পিক্সেল চালু ও বন্ধ হয় এবং এটি নিজের থেকে সামঞ্জস্য করে। এলইডি এবং ওলেড উভয়ই আলোকসজ্জার সমস্ত পরিস্থিতিতে ভাল কাজ করে। এলইডি এবং ওলেড টিভি দুটিই পাতলা, তবে ওএইএলডি পাতলা। কিছু এলইডি টিভিগুলি 1/4 ইঞ্চি পাতলা, কিছু ওএইএলডি টিভি দু’টি ক্রেডিট কার্ডের মতো পাতলা। লোয়ার-এন্ড এলইডি টিভিগুলিতে প্রায়শই অ্যাঙ্গেল সম্পর্কিত সমস্যা থাকে – ভাল ভাবে উপভোগ করতে চাইলে আপনাকে সরাসরি টিভির সামনে বসে থাকতে হয়। আই আমার মতে ওলেড কেনাই উত্তম।

৪. সাউন্ড কোয়ালিটির দিকে নজর দিন

আপনি যদি আপনার আশেপাশে একটু খেয়াল করেন দেখতে পাবেন অনেকেই তাদের টেলিভিশনের সাথে আলাদা সাউন্ড সিস্টেম বা সাউন্ড বক্স ব্যবহার করছে। আর এর প্রধান কারন হচ্ছে, সে সকল টিভিতে ভাল মানের সাউন্ড পাওয়া যায় না। তো এবার আসুন, আপনি যদি একটি আলাদা সাউন্ড বক্স কিনতে চান মোটামুটি ভাল সাউন্ড পেতে আপনাকে আলাদা ২০০০-৫০০০ টাকা খরচা করতে হয়; তাই আপনি যদি টিভি কেনার সময় এই বিষয়টি খেয়াল করেন আপনাকে সাউন্ডের জন্য অতিরিক্ত টাকা খরচা করতে হবে না।

৫. টিভি কেনার সময় রেজুলেশন খুঁজুন

পুরানো দিনগুলিতে, টিভি রেজোলিউশন ছিল ভয়াবহ, তবে আমাদের যা ছিল আমরা সেটুকুই পেতাম। আর একটা বিষয় জানেন কি? 4k এবং Ultra HD একই জিনিস। 4K তে রেগুলার এইচডি থেকে 6 মিলিয়ন বেশি পিক্সেল রয়েছে। তাই পারফেক্ট পিক্সেল, ভাল ও তীক্ষ্ণ ছবি উপভোগ করতে 4k TV পছন্দ করুন।  তবে ৩২ ইঞ্চির ফুল এউচডি (1080p) TV তে আপনি চমৎকার পিকচার উপভোগ করতে পারবেন।

৬. আপনার প্রয়োজনীয় পোর্টগুলো পাচ্ছেন কিনা

যেহেতু স্মার্ট টিভিতে ব্যবহৃত প্রযুক্তিগুলো আপনাকে বেটার রেজুলেশন ও একাধিক কন্টেন্ট উপভোগ করার সুযোগ দিচ্ছে। তাই আপনার বেশি ক্ষমতা সমপন্ন ও দ্রতগতির ব্যান্ডওয়াইডথ থাকা একান্ত জরুরি।  আপনি যদি 4 কে আলট্রা এইচডি টিভি পছন্দ থাকেন তবে আপনার এইচডিএমআই পোর্টগুলি বর্তমান 4K ডিভাইসের জন্য HDMI 2.0 সাপোর্ট করে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখুন। আজকাল অনেক টিভিতে ব্লু-টুথ সাপোর্ট করে। আর এর সাহায্যে আপনি কাউকে বিরক্ত না করেই বা বেটার সাউন্ড উপভোগ করার জন্য আপনার Bluethooth হেডফোন ব্যবহার করতে পারেন।

৭. শীতের সময় টিভি কেনা হতে বিরত থাকুন

প্রতি বছর জানুয়ারি মাসের দিকে বাজারে নতুন মডেলের টেলিভিশন আসে। আর বাজারে আসতে আসতে মার্চ মাস ছুয়ে যায়। তাই শীতকালে আপনি বেশিরভাগই আগের বছরের টেলিভিশন পাবেন। তবে লোকাল TV দোকানের কথা বলে লাভ নেই। এখানে আপনি আগের বছর তো দূরের কথা কয়েক বছর আগের টিভিও পেতে পারেন।

৮. অবশ্যই ওয়ারেন্টি এর দিক মাথায় রাখুন

ইলেকট্রিক জিনিসের গ্যারান্টি নেই। যে কোন সময় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। আর আপনার এত দাম দিয়ে কেনা টিভিটির সাথেও যদি এমন কোন দুর্ঘটনা ঘটে যায় তাহলে কেমন হবে? একবার ভেবে দেখেছেন কি? যদি না ভেবে থাকেন থাহলে একটু ভেবে দেখেতে পারেন। অবশ্যই ওয়ারেন্টি দেখে নিন। আজকাল অনেক টেলিভিশন কোম্পানি ৫ বছরেরও বেশি ওয়ারেন্টই অফার করে থাকে। অবশ্যই ভাল মানের ব্রান্ড ও প্রতিষ্ঠিত টিভি শোরুম থেকে কিনুন। না হয় টিভির ওয়ারেন্টি শেষ হওয়ার আগে শোরুম উধাও হয়ে যেতে পারে।

৯. এখন নিশ্চিত হতে পারছনে না কোন টিভিটি কেনা উচিত হবে!

এত কিছুর পরও পানি যদি নিশ্চিত হতে না পারেন যে আপনার কোন টিভিটি কেনা উচিত? তাহলে আপনাকে জন্য টিভি কেনার সেরা টিপস হচ্ছে, কোন একটি শোরুম বা কয়েকটি শোরুম ঘুরে দেখুন। একই সাথে কয়েকটি TV চালু করে দেখাতে বলুন। এবং নিজেই একটি টিভির সাথে অন্য টিভির পিকচার কোয়ালিটি ও সাউন্ড কোয়ালিটির পার্থক্য তুলনা করুন; সবশেষে আপনার কাছে যে টিভিটি সেরা মনে হয়। সেটি পছন্দ করুন ও আপনা পছন্দের টিভিটি কিনে ফেলুন।

প্রিয় ভিজিটর, আপনাদের সুবিধার্থে বাংলাদেশের বাজারে থাকে কয়েকটি স্মার্ট টিভি কোম্পানির টিভিগুলোর দামের রেঞ্জ তুলে ধরা হল। অর্থাৎ আপনি কতো টাকা বাজেটে এই সকল কোম্পানির TV কিনতে পারবে।

স্যামসাং টিভির দাম

বাংলাদেশের বাজারে ইলেক্ট্রনিক্স এর জগতে স্যামসাং একটি বহুল পরিচিত নাম। টেলিভিশন বাজারেও স্যামসাং এর বেশ দাপট রয়েছে। বাংলাদেশের বাজারে স্যমসাং স্মার্ট টিভির দাম ২২,০০০ টাকা থেকে ৩,৫২,০০০ টাকা।

ওয়ালটন টিভির দাম

দেশীয় পন্য ট্যাগ নিয়ে বাজারে এসে বাংলাদেশের বাজারে ওয়ালটন বেশ সারা ফেলেছে। মুলত কমদামের বাড়তি সব ফিচার দিয়ে তারা বাজের বেশ শক্ত একটা জায়গা দখল করে ফেলেছে। বাংলাদেশের বাজারে ওয়ালটন টিভির দাম ৯,৫০০ টাকা হতে ৯,৯৯,০০ টাকা।

সনি টিভির দাম

দেশের বাজারে টেলিভিশন দুনিয়ায় সনির আধিপত্যও চোখে পড়ার মতো। বাংলাদেশে সনি স্মার্ট টিভির দাম ২২,০০০ টাকা হতে ৭৮,০০,০০০ টাকা।

ভিশন টিভির দাম

বাংলাদেশের ভিশন টিভির দাম তুলনামূলক বেশ কম। ভিশন টিভির দাম মাত্র ১০,৯০০ টাকা হতে শুরু করে ২,৭৭,০০০ টাকা পর্যন্ত।

উল্লেখ্য, এখানে যে সর্বশেষ আপডেট পাওয়া পর্যন্ত বাজারে থাকা টেলিভিশনগুলো দাম তুলে ধরা হল।

আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। আপনার কোন পছন্দের টেলিভিশন বা টেলিভিশন কেনার কোন টিপস জানা থাকা থাকলে সেয়ার করতে পারেন আমাদের সাথে। ভালো থাকুন নিরাপদ থাকুন। আল্লাহ হাফেজ।

বাংলা ভাষায় হাজারো টিপস এবং ট্রিকস পড়তে নিয়মিত ভিজিট করুন আপনাদের প্রিয় টিপসওয়ালী ডট কম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *