https://tipswali.com/wp-content/uploads/2020/09/রান্না-টিপস.jpg
Spread the love

রান্না টিপস: অনেকের মতে রান্না একটি শিল্প। রান্নার গুন যত ভালো তার রান্নার করা খাবারের স্বাদও ততোটা মজার। আমাদের অনেকেই নিত্য নতুন রেসিপি রান্না করে পরিবারের সবার মাঝে পরিবেশন করতে কিংবা নিজে খেতে অনেক পছন্দ করে। কেউ কেউ আবার রান্নার নাম শুনলে পারলে পালিয়ে যেতে চায়। আর পালিয়ে যেতে চাইবেই না কেন! রান্নার কাজটি যতটা সহজ মনে হয় আসলে কিন্তু অতোটা সহজ না। তবে আপনি একটু চতুর হলেই এ কাজটি আপনার জন্য অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে।

প্রিয় পাঠক, আজকের লেখায় আপনাদের সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি রান্নার কাজ সহজ ও রান্না মজাদার করার জন্য কিছু টিপস। আশা করছি এই টিপসগুলো আপনার রান্না ঘরের পরিশ্রম লাগবে এবং খাবার মজাদার করতে বিশেষ ভুমিকা পালন করবে।

১. রান্নার রেসিপি জানুন

আপনি যদি রান্নাই একদম নতুন হয়ে থাকেন অথবা একবারে প্রথমবারের মতো  নতুন কোন রেসিপি রান্না করার ইচ্ছা পোষণ করেন। রান্না শুরু করার পূর্বে অবশ্যই রান্নার রেসিপি ভালো ভাবে পড়ে নিন। ধরুন আপনি প্রতম বারের মতো বিরিয়ানি রান্না করতে চাইছেন। বিরিয়ানি রান্নার আগে বিরিয়ানি রান্নার রেসিপি ভালো ভাবে জেনে নিন। আপনি চাইলে গুগলে সার্চ করে অথবা ইউটিউবে বিরিয়ানি রান্নার টিউটোরিয়াল দেখে নিতে পারেন। বিরিয়ানি রান্না শেখার পাশাপাশি বিরিয়ানি রান্নার জন্য কি কি জিনিস পত্র প্রয়োজন হবে, কোন ধরনের চাল, মশলা, কি পরমান মাংস ও কোন ধরনের পাত্র প্রয়োজন সেগুলো সম্পর্কে ধারনা নিন।

২. রান্নার উপকরন একত্র করুণ

আপনি বাসায় বসে সাধারনত কিচেনে রান্না করবেন। তবে অনেক সময় বিশেষ রান্নার প্রয়োজন হয়ে থাকে যেমন- ঘরোয়া পিকনিক, পার্টি এ সময়গুলোতে আমরা উঠান, ছাদ বা খোলা স্থান নির্ধারণ করে থাকি। খোলা স্থানে রান্না করার আগে নিশ্চিত হন উপরে গাছ থেকে পাতা বা অন্য কিছু পরার সম্ভাবনা আছে কিনা। আপনি যে জায়গায় বসে রান্না করবেন রান্না করতে যে সকল উপকরন প্রয়োজন হবে সেগুলো এক জায়গায় করুণ। বিশেষ করে পরিস্কার পাত্র, পানি, গ্যাসে লাইন না থাকলে লাকড়ি।  এই ছোট্ট টিপসটি আপনার রান্নার সময় বাঁচাবে।

৩. চাকু বা বটি ভালো ভাবে ধারালো করে নিন

মাছ রান্নার রেসিপি শিখলেন। মাছ কাটার জন্য বটিতে ধার নেই কেমন হবে ভাবছেন কি একবারও? যে কোন রান্না করাঠিক আপনাকে টুকটাক কাটাকাটি করতে হবে। তাই রান্না করতে যাওয়ার আগে কাটাকাটি করার জন্য চাকু বা বটি যাই ব্যহার করেন ভালো ভাবে ধারালো করে নিন। এছাড়া পর্যাপ্ত ধার না থাকলে আপনি সঠিক আকারে কাটতেও পারবেন না।

৪. ভালো ভাবে পরিস্কার করুণ

রান্নার শুরু করার আগে মাংস, শাকসবজি সাইজ মতো কেটে নিন এবং পরিস্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। মাছ মাংস রান্নার পূর্বে কয়েকবার ধুয়ে নিন। এবং সম্ভব হলে মাছ লবন দিয়ে ধুয়ে নিন। মাংস, শাঁক, শাপলা লাউ রান্নার পূর্বে ভালো ভাবে পানি ঝরিয়ে নিন। কারন রান্নার সময় আপনি যখন কসাতে যাবেন এগুলোর সাথে পানি থাকে তাহলে ভালো ভাবে সিদ্ধ হবে না। আর অতোটা স্বাদও হয় না।

৫. রান্নায় লবনের সঠিক পরিমান নিশ্চিত করুণ

রেসিপি ভেদে রান্নায় লবনের পরিমান কম বেশি হয়ে থাকে। আবার অনেকে কম বা বেশি লবন খেতে অভ্যস্ত। রান্না শুরুর পূর্বে অবশ্যই রেসিপি থেকে জেনে নি কি পরিমান লবনের প্রয়োজন হবে। সবচেয়ে ভালো হয় রান্না শুরু করার কিছুক্ষণ পর খুন্তি বা চামচ দিয়ে হালকা লবন চেক করে নেওয়া যে, লবনের মাত্রা ঠিক আছে কিনা।

৬. রান্না করার সময় ঢাকনা ব্যবহার করুণ

রান্না করার সময় যত সম্ভব ঢাকনা ব্যবহার করুণ। পুষ্টি বিশেষজ্ঞদের মতে খাবার ঢেকে রান্না করলে খাবারের পুষ্টিগুন ঠিক থাকে। এছাড়া রান্না সঠিক ভাবে সিদ্ধ করতে ও রান্নায় স্বাদ আনতে ঢাকনা ব্যবহার করার জুড়ি নেই। ভাত রান্নার জন্য চাল ধোঁয়ার ১০ মিনিট পর রান্না বসান। ভাত ঝরঝরা করতে চাইলে পাতিলে একচামচ তেল দিয়ে নিন।

৭. মাছ ভাজার সময় সচেতন থাকুন

মাছ ভাজার আগে ভালো করে পানি ঝড়িয়ে নিন। মাছ ভালো ভাবে ধুয়ে ঝুড়িতে রেখে পানি ঝড়ান। তেল ভালো ভাবে গরম হওয়ার পর মশলা মেখে তেলে মাছ ছাড়ুন। মাছ ছেড়ে হালকা দূরে থাকার চেষ্টা করুণ। মাছের পানি থাকলে তেল ফুটে আপনার চোখ বা গায়ে পড়তে পারে। মাছ রান্না করে কিছু ধনে পাতা দিয়ে দিন স্বাদ অনেকগুন বেড়ে যাবে।

৮. রান্না শেষে রান্নাঘর পরিস্কার করুণ

রান্না শেষ করার পর রান্নাঘর পরিস্কার করাও একটি গুন। তবে অপনি যদি খেয়াল করে অনেকের কিচেনে গেলে দেখবেন একদম অপরিষ্কার নোংরা। আপনাকে আগামি কাল রান্নার জন্য একই জায়গা ব্যবহার করতে হবে। আর রান্নার ঘর অপরিষ্কার রাখলে নানা ধরনের জিবানুর সংক্রমন ঘটবে। খাবারের মাধ্যমে আপনার ও আপনার পরিবারের সদস্য দের শরীরে প্রবেশের মাধ্যমে নানা রোগের বিস্তার ঘটাতে পারে। এছাড়াও বাসায় কেউ একজন বেড়াতে আসলে আপনাকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করবে। তাদের কাছে আপনি নোংরা একজন মানুষ বলে বিবেচিত হবেন।

৯. খাবার ফ্রিজ করুণ

রান্না করে তাজা তাজা খাবার পরিবেশন করা সব চেয়ে উত্তম। তবে আপনি যদি কোন খাবার পরে খাওয়ার জন্য সংরক্ষন করতে চান তাহলে খাবারগুলো ভালো ভাবে ঠাণ্ডা করে ফ্রিজ করুণ। অর্থাৎ গরম গরম কোন খাবার ফ্রিজ করা থেকে বিরত থাকুন। নির্দিষ্ট সময় পর পর ফ্রিজ পরিস্কার করুন। না হয় আপনার ফ্রিজে জীবাণুর সংক্রমণ ঘটতে পারে।

ফ্রিজে রাখা কোন কিছু রান্না করতে চাইলে এক থেকে আধাঘণ্টা আগে ফ্রিজ থেকে বের করুন। মাছ মাংস হলে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। অবশ্যই গরম পানি ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

১০. কিচেন থার্মোমিটার ব্যবহার করুণ

একেক রেসিপির জন্য আলাদা আলাদা তাপ প্রয়োজন। কিচেন থার্মোমিটার এই কাজে সাহায্য করবে। এর সাহায্যে আপনি বুজতে পারবেন কত তাপমত্রায় আপনার রান্না চলছে।

আরও কিছু রান্না টিপস

ডিম ও আলু সিদ্ধ করতে হালকা লবন ব্যবহার করুণ। এর ফলে ডিমের খোসা তুলতে সুবিধা হবে। এবং আলু ভালো ভাবে সিদ্ধ হবে। তরকারির ঝোল ঘন করতে চাইলে কিছু কিছু কর্ণ ফ্লাওয়ার পানিতে গুলে ঢেলে দিন। স্যুপ রান্নার সময় স্যুপ পাতলা হয়ে গেলে স্যুপের মধ্যে কিছু আলু সিদ্ধ করে ভেঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে দিন। ডাল দ্রুত সিদ্ধ করতে চাইলে আগের রাতে ভিজিয়ে রাখুন। ভালো সিদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি ঘ্রান দূর করতেও সাহায্য করে। পাতলা ডালে কাচা ধনিয়ার পাতা ব্যবহার করতে পারেন।

রান্নার কাজে নানা মশলা ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এক মশলার বদলে অন্য মশলা ব্যবহার করলে তরকারি বা খাবারে স্বাদ নষ্ট হয়ে যায়। এই ঝামেল থেকে বাঁচতে আলাদা আলাদা কৌটা ব্যবহার করুণ। এবং কৌটার গায়ে মশলার নাম লিখে রাখুন। এতে করে মনে রাখতে সুবিধা হবে।

তরকারিতে লবন বেশি হয়ে গেলে কি করবেন?

অনেক সময় তরকারিতে লবন বেশি হয়ে যায়। চিন্তার কারন নেই, তরকারিতে লবন বেশি হয়ে গেলে  কয়েকটি আলু (পরিমান মতো) সিদ্ধ করে ভেঙ্গে দিন।

সকল প্রকার রান্নার রেসিপি, বিউটি টিপস, স্বাস্থ্য টিপস পেতে নিয়মিত ভিজিট করুণ আপনাদের প্রিয় টিপসওয়ালী ডট কম। প্রিয় পাঠক, আপনার জানা কোন টিপস কিংবা রেসিপি আমাদের সাথে সেয়ার করতে পারেন। আমাদের কাছে লিখতে ভিজিট করুণ এখানে। কোন প্রকার প্রশ্ন থাকলে আমাদের কাছে লিখতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ

ইলেকট্রিক প্রেসার কুকার কেনার টিপস 

ওজন কমানোর সহজ উপায়

স্মার্ট টিভি কেনার টিপস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *