https://tipswali.com/wp-content/uploads/2021/09/activated-charcoal.jpg

সাম্প্রতিক সময়ে চারকোল নিয়ে দেশে-বিদেশে অনেক আলোচনা চলছে। বাংলাদেশ ২০১২ সালে সর্বপ্রথম বাণিজ্যিকভাবে অ্যাকটিভেটেড চারকোল উৎপাদন শুরু হয়। এবং সে সময়েই চীনের বাজারে এর বাণিজ্যিক রফতানি শুরু হয়। বর্তমানে মধ্যপ্রাচ্য সহ উন্নত বিশ্বের নানা দেশে বাংলাদেশ হতে এটি রফতানি করা হচ্ছে। তবে অবাক করা বিষয় হলেও সত্য যে আমাদের দেশের অধিকাংশ মানুষেরই এই মুল্যবান ও সম্ভাবনাময় পণ্যটি সম্পর্কে বিস্তার ধারনা নেই।

সম্মানিত ভিজিটর, আজকের লেখাজুড়ে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করবো- অ্যাকটিভেটেড চারকোল কি, কোথায় পাওয়া যায়, রূপচর্চায় চারকোলের ব্যবহার, উপকারিতা, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, ফেসপ্যাক, দাম, আমদানি কারক দেশ ও এ সম্পর্কিত অন্যান্য বিষয় নিয়ে।

Table of Contents

অ্যাকটিভেটেড চারকোল কি?

যখন কোন জীবাশ্ম জ্বালানীর মাধ্যমে প্রাপ্ত কয়লা অনেক উচ্চতাপে রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে এর আভ্যন্তরীণ অবস্থার বা গুনাগুন পরিবর্তন করা হয় তখন তাকে অ্যাকটিভেটেড চারকোল বলা হয়। এই কয়লা মূলত বিভিন্ন ধরনের জীবাশ্ম জ্বালানি, নারিকেলের ছোবড়া, কাঠ, পাঠকাঠি থেকে তৈরি করা হয়।

কি দিয়ে চারকোল তৈরি হয়?

বিভিন্ন ধরনের জীবাশ্ম জ্বালানী, হাড়, পাটকাঠি, নারকেলের খোসা, জলপাই কাঠ ইত্যাদি দিয়ে অ্যাকটিভেটেড চারকোল তৈরি করা হয়।

অ্যাকটিভেটেড চারকোলের ব্যবহার

ফেসওয়াস, স্ক্রাব, পিল অব মাস্ক, পানির ফিল্টার, মোবাইলের ব্যাটারি, প্রসাধনী, দাঁত পরিষ্কারক ওষুধ, বিষ ধ্বংসকারী ওষুধ, ফটোকপি মেশিনের কালি, ও অন্যান্য জীবন রক্ষাকারী ওষুধ তৈরিতে চারকোল ব্যবহার করা হয়।

ত্বকের যত্নে অ্যাকটিভেটেড চারকোলের ব্যবহার

যাদের স্কিন বেশি তৈলাক্ত বা তেলতেল তাদের জন্য অ্যাকটিভেটেড চারকোল ফেস মাস্ক হতে পারে একটি দারুন সমাধান।

এটি দিয়ে তৈরি করা ফেস মাস্ক আপনার মুখের স্কিনের লোমকুপের গোঁড়ায় জমে থাকা ধুলা-ময়লা, মৃত কোষ টেনে বেড় করে। ফলে মুখের স্কিন আরও বেশি উজ্জ্বল ও সতেজ দেখায়। পাশাপাশি এটি আমাদের শরীরে শোষিত হয় না ফলে এটি স্কিনেরও কোন ক্ষতি করে না।

নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণের সমস্যার সমাধান পাওয়া যায়। পাশাপাশি এটি আনার মুখের ব্রণের দাগ দূর করতেও বেশ কার্যকরী।

খেয়াল রাখবেন, সরাসরি এটি স্কিনে এপ্লাই করা থেকে বিরত থাকুন। বাজারে পরিশোধিত চারকোলের তৈরি ফেস মাস্ক কিনতে পাওয়া যায় এগুলো এপ্লাই করুন।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

Activated charcoal সরাসরি স্কিনের উপর কোন প্রভাব ফেলে না। তবে অতিরিক্ত ব্যবহারের ফলে আপনার স্কিনে সমস্যা দেখা দিতে পারে। ব্ল্যাক হেডস তুলে আনার সাথে সাথে ফেস মাস্কগুলো মুখের ত্বকে থাকা তেলও উঠিয়ে নিয়ে আসে। তবে বারবার এই ধরনের ফেসমাস্ক ব্যবহার করলে স্কিনের জন্য প্রয়োজনীয় তেলের ঘাটতি দেখা দিতে পারে। আর এই কারনে আপনার স্কিন অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে যেতে পারে।

চারকোল এর দাম

আন্তর্জাতিক বাজারে ১ কেজি অ্যাকটিভেটেড চারকোলের দাম ১০০-৪০০ টাকা। এবং ১ টন অ্যাকটিভেটেড চারকোলের পাইকারি মুল্য ২০০০ টাকা থেকে ৬০০০ টাকা। অপরদিকে অ্যাকটিভেটেড চারকোল ফেস মাস্কের দাম ৩৫০ টাকা থেকে ৫৫০ টাকা।

কোথায় চারকোলের কিনতে পাওয়া যায়?

বর্তমানে গ্রামীণ পর্যায়ে অনেকেই এটি প্রস্তুত ও বিক্রি করছে। বাংলাদেশের ফরিদপুর, জামালপুর, ঝিনাইদাহ, রাজশাহী, লালমনিরহাট, পাবনা, নারায়ণগঞ্জ, রাজবাড়ি ও অন্যান্য জেলায় অ্যাকটিভেটেড চারকোল কিনতে পাওয়া যায়। বাংলাদেশে যেসব এলাকায় পাট উৎপাদন বেশি হয় এই সকল অঞ্চলে এটি বেশি প্রস্তুত হয়।

ফেসপ্যাক

আপনি চাইলে বাসায় বসে অ্যাকটিভেটেড চারকোল ফেসপ্যাক বানিয়ে পিল অফ মাস্ক হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। যেভাবে ফেস মাস্ক তৈরি করবেন-

২ টেবিল চামচ পানি, ১ টেবিল চামচ বেন্টোনাইট কাদামাটি, ১ টেবিল চামচ অ্যাকটিভেটেড চারকোল পাউডার, ১ চামচ খাঁটি মধু, ১ ফোটা লেমন ওয়েল বা লেভেন্ডার ওয়েল নিন।

প্রথমে একটি বাটিতে পানি ও ওয়েল নিন, এবার এর মধ্যে বেন্টোনাইট কাদামাটি ভালোভাবে মেশান, কয়েক মিনিট রেখে দিন। এবার চারকোল পাউডার ও খাঁটি মধু মিশিয়ে একটি পেস্টের মতো তৈরি করুন। শুষ্ক ত্বকের জন্য টক দই মিশিয়ে নেন। হয়ে গেল ফেস প্যাক তৈরি করা।

চারকোল আমদানি কারক দেশ

বাংলাদেশে উৎপাদিত চারকোলের মূল ক্রেতা চীন। চীনের পাশাপাশি ব্রাজিল, জাপান, তুরস্ক, আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়া, তাইওয়ান, মেক্সিকো, কানাডায় চারকোলের চাহিদা রয়েছে।

বাংলাদেশ চারকোল ম্যানুফ্যাকচারার এন্ড এক্সপোর্টারস এসোসিয়েশন

২০১৮ সালের ১৪ নভেম্বর তারিখে বাংলাদেশ বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে বাণিজ্য সংগঠন অধ্যাদেশ ১৯৬১ এর ৩ ধারার অধীনে Bangladesh Charcoal Manufacturer And Exporters Association এর অনুকূলে লাইসেন্স প্রদান করেন ও নিবন্ধ লাভ করেন। যেখানে বাংলাদেশ চারকোল উৎপাদক ও রপ্তানিকারক সমিতি এর ঠিকানা হিসেবে ফ্লাট ৭-এফ, শেলটেক টাওয়ার, ৫৫ পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা-১২০৫ উল্লেখ করা হয়েছে।

সর্বশেষ

স্কিনের সৌন্দর্যের জন্য যে পন্যই ব্যবহার করেন না কেন সর্বদা মানসম্মত ও ভালো ব্র্যান্ডের পন্য ব্যবহার করুন।

আমাদের লেখা নিয়ে আপনার কোন মতামত, অভিযোগ কিংবা পরামর্শ থাকলে লিখতে পারেন টিপসওয়ালীর ফেসবুক পেজে।

আরও পড়ুনঃ রূপচর্চায় মুলতানি মাটির ব্যবহার ও ফেসপ্যাক