https://tipswali.com/wp-content/uploads/2021/03/blender-in-bangladesh-2.jpg

গৃহস্থলী নানা কাজ যেমন মশলা গুঁড়া করা, বাসায় কোন জুস তৈরি থেকে শুরু করে রেস্টুরেন্টে ড্রিংকস, ফলের জুস তৈরির কাজে ব্লেন্ডারের ব্যবহারের শেষ নেই। আজকাল বাজারে শত মডেল ডিজাইন আর ব্রান্ডের ব্লেন্ডার পাওয়া যায়। তবে এদের মধ্যে কাজেও বা ব্যবহারেও পার্থক্য রয়েছে। সঠিক দাম না জানা থাকার কারনে ব্লেন্ডার কিনতে গিয়ে অতিরিক্ত দাম দিয়ে আসেন অনেকে। পাশাপাশি নকল পন্যের হিড়িক তো আছেই। এতো সবের ভিড়ে আসল ব্রান্ডের ব্লেন্ডার মেশিন কিনতে পারা অনেকটা কঠিন কাজও বটে। আবার আমাদের অনেকেরই ব্লেন্ডার ব্যবহারের সঠিক নিয়ম জানা না থাকার কারনে অল্পদিনের মধ্যে ভালো দাম দিয়ে কেনা ব্লেন্ডারটি নষ্ট হয়ে যাওয়া সময়ের ব্যপার মাত্র।

প্রিয় পাঠক/পাঠিকা আজকের লেখাজুরে কথা হবে বাংলাদেশের বাজারে থাকা সেরা কয়েকটি ব্লেন্ডার মেশিন, ব্লেন্ডারের দাম, ব্লেন্ডার মেশিন ব্যবহারের সঠিক নিয়ম নিয়ে বিস্তারিত। আর্টিকেলটি আপনার জন্য উপকারি হয়ে থাকলে শেয়ার করুন আপনার কাছের মানুষের মাঝে।

ব্লেন্ডার কি?

ইংরেজিতে Blender বা ব্লেন্ডার। যার বাংলা অর্থ মিশ্রণকারী। আর ব্লেন্ডার মেশিন মানে যে যন্ত্রের সাহায্যে কোন কিছু মিশ্রণ করা হয়। অন্যভাবে বলা যায়, ব্লেন্ডার হচ্ছে একটি রান্নাঘর কিংবা পরীক্ষাগার সরঞ্জাম যা সাধারনত খাবার এবং অন্যান্য পদার্থগুলিকে মিশ্রণ, গুঁড়ো, পুরি করার জন্য ব্যবহৃত হয়ে থাকে। ইলেকট্রিক কিংবা হাতে চালিত দুই প্রকারের Blender মেশিন বাজারে কিনতে পাওয়া যায়।

ব্লেন্ডার কেনার টিপস

আমরা যারা প্রথমবার কোন কিছু কিনতে যাই আমাদের বেশিরভাগেরই ওই পণ্যটি সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকে না। আশা করছি আমাদের ব্লেন্ডার মেশিন  কনার টিপসগুলো আপনাকে একটি ভালোমানের ও দীর্ঘদিন ব্যবহার করা যায় এমন একটি ব্লেন্ডার মেশিন কিনতে সাহায্য করবে।

১) সাইজের বিষয়টি মাথায় রাখুন

বাজারে আলাদা আলাদা কাজের জন্য আলাদা সাইজের ও ডিজাইনের ব্লেন্ডার মেশিন কিনতে পাওয় যায়। একটি ব্লেন্ডার মেশিনে ৩ থেকে ১৪ কাপ পরিমান মিশ্রণ করা যায়। আপনারা যদি বাসার টুকিটাকি কাজের জন্য একটি ব্লেন্ডার মেশিন কিনতে চান তবে মাঝারি থেকে বড় সাইজের মেশিন কেনার চেষ্টা করুন। একদম ছোট সাইজের ব্লেন্ডার মেশিনে আপনি বড় কিছু মিশ্রণ করতে পারবেন না। তবে বড় বা মাঝারি সাইজে ছোট কোন কিছু ব্লেন্ড করতে পারবেন।

২) স্পীড ও পাওয়ারের বিষয়টি খেয়াল রাখুন

স্পীড বা গতির উপর নির্ভর করে আপনার মিশ্রণগুলো কতো মসৃণ হবে। একটি ব্লেন্ডারে সাধারনত ৩ থেকে ১০ স্পীড সেটিং থাকে। বাজারে আলাদা আলাদা ওয়াটের ব্লেন্ডার মেশিন পাওয়া যায়। মিল্কসেক কিংবা অন্য যে কোন সাধারন মিশ্রণের জন্য ৫০০ ওয়াট পর্যন্ত ঠিক আছে।

৩) ব্লেন্ডার এর দাম কিংবা বাজেটের দিকে নজর রাখুন

কোন কিছু কেনার সময় দাম একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যেহেতু বাজারে ভিবিন্ন কাজের, সাইজের ও স্পীডের Blender পাওয়া যায়। তাই এদের দামের মধ্যেও বেশ পার্থক্য রয়েছে। উপরের দুটি বিষয় মাথায় রেখে আপনি একটি বাজেট তৈরি করুন। এরপর আপনার সাধ্যের মধ্যে একটি ব্রান্ডের ব্লেন্ডার কিনে নিন।

৪) ব্লেন্ডিং-এর কাজ গতিশীল করতে আরও কিছু

বিক্রি কিংবা প্রচারনা বাড়তে কোম্পানিগুলো একটি ব্লেন্ডারের সাথে অনেক অতিরিক্ত গিফট দিয়ে থাকে। তবে বেশিরভাগ সময় এগুলো কিনে নিতে হয়। হাতের মধ্যে আসে এমন সাইজের কাপ, চপিং কিংব মিক্স বোল আপনার কাজের গতি কয়েকগুন বাড়িয়ে দিবে।

ব্লেন্ডার ব্যবহারের নিয়ম – How to use blender

ব্লেন্ডার ব্যবহার করা একদম সহজ কাজ। আপনি যদি নতুন ইউজার হয়ে থাকেন তবে, নিচের পদ্ধতিগুলো অনুসরন করেন।

১) ভিতরের দিকটা পরিষ্কার করুন

ব্লেন্ডার অনেক দিন ব্যবহার না করার কারনে কিংবা নতুন অবস্থা অনেক রাসায়নিক দ্রব্য ও ধুলাবালি জমে থাকতে পারে। তাই ব্যবহারের আগে প্রথমে ভালোভাবে ব্লেন্ডারের ভিতরের দিকটা পরিষ্কার করুন।

২) প্লাগ ইন করুন

আপনার ব্লেন্ডারের সাথে একটি অরিতিক্ত ক্যবল পেয়ে থাকবেন। ক্যাবলের একটি দিক ব্লেন্ডার মেশিন ও অন্যদিক বৈদ্যুতিক লাইনের সাথে প্লাগ ইন করুন।

২) ঢাকনা খুলুন

ব্লেন্ডার মেশিনের ঢাকনা খুলে কিচনের কাছেই বা আপনি যে জায়গার কাজ করছেন, আশেপাশেই রাখুন। বেশিরভাগ মেশিনের ঢাকনা কাচের হয়ে থাকে। তাই উপর থেকে পড়ে ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৩) প্রয়োজনীয় উপকরণ ঢালুন

যে উপকরনগুলো ব্লেন্ড করতে চাচ্ছেন সেগুলো ব্লেন্ডারের মধ্যে ঢালুন। যেমন- আপনি যদি জুস তৈরি করতে চান তাহলে ফল দিন। প্রয়োজনে ছোট ছোট সাইজ করে দিন। এতে আপনার মেশিনের উপর চাপ কম পড়ে।

৪) প্রয়োজনে পানি ও বরফ দিন

আপনি যে উপকরণ বা খাবারটি তৈরি করতে চাইছেন প্রয়োজনে পরিমান মতো বরফ কিংবা পানি দিনে নিন। বিশেষ করে জুস তৈরি করতে ঠাণ্ডা পানি কিংনা বরফ ব্যবহার করতে দেখা যায়। তবে অতিরিক্ত ঠাণ্ডা আপনার শরীরের জন্য ক্ষতির কারন হয়ে দাড়াতে পারে।

৫) ঢাকনা দিয়ে আটকে দিন

উপকরনগুলো দেওয়া হলে। ভালো করে ঢাকনা দিয়ে আটকে দিন। না হয় ব্লেন্ডার চালু হলে সব কিছু চারদিকে ছিটে আসবে।

৬) অল্প পাওয়ার দিয়ে শুরু করেন

একেক ধরনের মেশিনের স্পীড আলাদা আলদা হয়ে থাকে। প্রথমে ফুল পাওয়ার না দিয়ে সামান্য পাওয়ার দিয়ে শুরু করেন। এবং প্রয়োজনের আস্তে আস্তে বাড়িয়ে নিন।

৭) ব্লেন্ড শেষে পাত্রে ঢেলে পরিবেশন করুন

ব্লেন্ডিং করা হয়ে গেলে, একটি পাত্রে ঢালুন কিংবা গ্লাসে ঢেলে পরিবেশন করুন। তবে মশলা ব্লেন্ডিং করলে অবশ্যই সঠিক কাজে ব্যবহার করুন।

সেরা পাঁচটি বাজেট ফ্রেন্ডলি ব্লেন্ডার মেশিন ও এদের দাম

বাংলাদেশের বেশিরভাগ ইলেকট্রিক ও ইলেক্ট্রনিক্স পন্য চায়না, কোরিয়া, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, কিংবা হঙ্কং থেকে আমদানি করা হয়। তবে ইতিমধ্যে আমাদের দেশের বেশ কয়কেটি কোম্পানি ব্লেন্ডার মেশিন তৈরি ও বাজারজাতকরন শুরু করছে। নিচে বাংলাদেশের বাজারে থাকা ৫ টি ব্লেন্ডার ও এদের দাম নিয়ে আলোচনা করা হলঃ ( The 5 best blender and price in Bangladesh)

1. Philips Blender HR2114 03

ইলেক্ট্রনিক্স পন্যের জন্য বিশ্বজুড়ে ফিলিপস এর বেশ সুনাম রয়েছে। বাংলাদেশের বাজারে ফিলিপস এর Philips Blender HR2114 03 পাওয়া যাচ্ছে। যাতে থাকছে ৪৫০ ওয়াটের শক্তিশালী একটি মোটর। সর্বোচ্চ ধারন ক্ষমতা ১.২ লিটার। এর ৪ স্টার স্টেইনলেস ষ্টীল ব্লেড আপনাকে দারুন ব্লেন্ডিং অভিজ্ঞতা দিতে সক্ষম। প্রায় প্রত্যেকটি অংশ খুলে খুলে পরিষ্কার করতে পারবেন। পাশাপাশি থাকছে ২ বছরের গ্যারান্টি। বাংলাদেশের বাজারে (Philips Blender HR2114 03) ফিলিপস এইচআর২১১৪ ০৩ এর দাম  ৪৬০০ টাকা।

2. Panasonic Blender MX-EX1021

বাংলাদেশের ইলেক্ট্রনিক্স এর বাজারে প্যানাসনিক এর অবস্থানো বেশ শক্ত। বাংলাদেশের বাজারে থাকা প্যানাসনিকের বেলেন্ডারের মধ্যে Panasonic Blender MX-EX1021 হতে পারে অন্যতম একটি ভালো চয়েজ। দেখতে বেশ চমৎকার এই Panasonic Blender টি আপনার কিচেনের সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিতে সক্ষম। এতে রয়েছে ৪০০ ওয়াটের একটি মোটর ও দুইটি মিলস ফলে আপনি ফল কিংবা মশলা সবই ব্লেন্ড করতে পারবনে খুব সহজে। বাংলাদেশের বাজারে Panasonic Blender MX-EX1021 এর দাম ৪৫০০ টাকা।

3. Walton WBL-13CC25 Blender And Juicer

মেইড ইন বাংলাদেশ ট্যাগ লাগিয়ে বাংলাদেশের বাজারে ওয়ালটন বেশ সুনাম কুড়িয়েছেন।  বাংলাদেশের আপনি যদি কম বাজেটে একটি ভালো মানের ব্লেন্ডার কেনার কথা ভাবেন তবে আপনি ওয়ালটন WBL-WBL-13CC25 ব্লেন্ডারটি বেছে নিতে পারেন। মাঝারি সাইজের ওয়ালটন ব্লেন্ডারটি দেখতেও বেশ সুন্দর। এর ধারন ক্ষমতা ১.৩ লিটার।  বংলাদেশের বাজারে ওয়ালটন WBL-WBL-13CC25 ব্লেন্ডারটির দাম ধরা হয়েছে ১৫৫০ টাকা।

4. Vision Blender VIS-SBL-005

বাংলাদেশে ভিশন ইলেক্ট্রনিক্স বেশ সুপরিচিত। ভিশন মূলত আরএফএল এর একটি সাব ব্রান্ড। টিভি ফ্রিজের পাশাপাশি তাদেরও রয়েছে ব্লেন্ডার। এতে থাকছে চার হেডের ধারালো স্টেইনলেস ষ্টীল ব্লেড। সব চেয়ে মজার বিষয় হচ্ছে আপনি একই সাথে তিনটি জার পাচ্ছেন। যার ধারন ক্ষমতা যথাক্রমে ১.৫ লিটার, ১.১ লিটার ও ০.৬ লিটার। বাংলাদেশের বাজারে এই ব্লেন্ডারটির দাম ধরা হয়েছে ৩৮০০ টাকা।

5. Sharp-EM-100PM-ST- Blender

বাংলাদেশের বাজারে অধিক বিকৃত ব্লেন্ডারের মধ্যে Sharp-EM-100PM-ST- Blender অন্যতম। এতে রয়েছে দুই স্পীড ও প্লাস সেটিং। এতে থাকছে ৩ টি স্বচ্ছ জার ও ৫০০ ওয়াটের একটি মোটর। বাসার দৈনন্দিন কাজের জন্য সিম্পল সলুস্যন হতে পারে এই ব্লেন্ডারটি। বাংলাদেশের বাজারে এর দাম ধরা হয়েছে ৩৬০০ টাকা।

ব্লেন্ডার নিয়ে সর্বশেষ

প্রিয় পাঠক/পাঠিকা, দাম দিয়ে যেহেতু পন্য কিনতে যাচ্ছেন সব সময় কোয়ালিটি পন্য কেনার চেষ্টা করুন। বাংলাদেশে বাজার কিংবা দোকানগুলো আজকাল নকল পন্যের পন্যের স্বর্গে পরিণত হয়েছে। তাই অবশ্যই স্বনামধন্য ও অনুমোদিত শপ থেকে পন্য কেনার চেষ্টা করুন। আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। বাংলা ভাষায় টিপস ট্রিক্স পড়তে নিয়মিত ভিজিট করুন আপনাদের প্রিয় টিপসওয়ালী ডট কম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.