https://tipswali.com/wp-content/uploads/2021/02/coocking-tips-for-housewife-in-bangla.jpg

নতুন সংসারে নতুন রান্না-বান্না শুরু করেছেন? রান্না করতে করতে সময় শেষ হয়ে যায় কিংবা খেয়ালে বেখেয়ালে অনেক ভুল করে ফেলেন? জি প্রিয় ভিজিটর রান্না ঘরে আপনার সাথেও ঠিক এই সব ঘটে থাকলে আজকের লেখাটি আপনার জন্য। প্রিয় পাঠক/পাঠিকা, আজকের লেখায় আমরা শেয়ার করতে যাচ্ছি রান্না সহজ ও মজাদার করতে গৃহিণীদের জন্য কিছু টিপস ও কৌশল নিয়ে। আর আপনি যদি বিশেষ করে একজন সম্মানিত গৃহিণী হয়ে থাকেন তবে আজকের লেখাটি আপনার জন্য।

রান্নাবান্না আমাদের জীবনের সাথে ওতপ্রতভাবে জড়িয়ে আছে। এটি আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। সময়ের সাথে মানুষের জীবনযাত্রার যেমন পরিবর্তন হয়েছে তেমনি রান্নার কৌশলেও এসেছে আমূল-পরিবর্তন। প্রত্যেক গৃহিণী -ই চায় রান্নাবান্না ঝামেলামুক্তভাবে করতে। কারণ কর্মব্যস্ততার এই জীবনে সবসময় সাজিয়ে গুছিয়ে পর্যাপ্ত সময় হাতে নিয়ে রান্না করার সময় কারোই নেই বললেই চলে।

আর আজকাল মেয়েরা শুধু গৃহিণী ই নয়, বাহিরের নানা কাজেও সম্পৃক্ত। তাই ঘরের পাশাপাশি অফিসও সামলাতে হয়। আর ঝটপট রান্না শেষ করে যুক্ত হতে হয় অন্য কাজে। তাই রান্নার করার সময় যদি রান্নার কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস জানা থাকে তাহলে যেমন সময় বাঁচে তেমনি ঝামেলা ছাড়া খুব সহজে রান্না করা যায়। আর এতে রান্না ভালো ও সুস্বাদু কিংবা মজাদার হয়।

১) মাংসে লবণের ব্যবহার

লবন যেমনি খাবারের স্বাদ আনে তেমনি খাবার সিদ্ধ করতে বেশ ভুমিকা পালন করে থাকে। খালি লবন খয়াওয়া যেমন অসম্ভব তেমনি লবন ছাড়া তরকারি, ভক্ষন করতে কেমন লাগে অসহ্য আমার মনে হয় সবারই কম বেশি অভিজ্ঞতা আছে। মাংস রান্না করার সময় প্রথমেই লবণ ব্যবহার করবেন না। রান্নার মাঝামাঝি সময়ে লবণ দিয়ে ভালোভাবে নাড়ুন এরপর পরীক্ষা করে দেখে নিন পরিমাণ ঠিক আছে কিনা।

২) মুরগী রান্না

গরুর মাংসের পর মুরগির মাংস আমার সব থেকে বেশি পছন্দের আশেপাশে বন্ধু-বান্ধবিদেরও দেখলাম একই অবস্থা। আর আমার মনে হয় প্রিয় ভিজিটর আপনারও একই অবস্থা। সুস্বাদু হওয়ার পাশাপাশি মুরগির মাংশে রয়েছে নানা পুষ্টি উপাদান। তবে কথা হচ্ছে স্বাস্থ্যসম্মত মুরগীর তরকারী খেতে চাইলে মুরগীর চামড়া ছাড়িয়ে খেতে পারেন। কারণ প্রধান ফ্যাট থাকেই মুরগীর চামড়াতে।

৩) সবজির সবুজ রং ধরে রাখা

সবুজ সবজিতে রয়েছে নানা পুষ্টিগুন ও ভিটামিন। নিয়মিত খাবার তালিকায় সবজি রাখা উচিত। আমাদের মধ্য অনেকেই রান্নার পর সবজির সবুজ রং পছন্দ কর থাকে। রান্নার পরে সবজির সবুজ রং ধরে রাখতে রান্নার সময় এক চিমটি চিনি ব্যবহার করুন দেখবেন রান্নার পরেও সবজিগুলো কেমন সবুজ দেখাচ্ছে।

৪) তরকারির ঝোল ঘন করা

ঝোল তরকারি ক্ষেতে পছন্দ করেন? তাও আবার ঘন ঝোল! আপনি এই সহজ টিপসটি অনুসরন করে খুব সহজেই তরকারির ঝোল ঘন করে ফেলতে পারেন। রান্নার ক্ষেত্রে তরকারির ঝোল ঘন করার সহজ উপায় হচ্ছে- তরকারিতে কর্ণ ফ্লাওয়ারের ব্যবহার। একটি পাত্রে কিছু কর্ণ ফ্লাওয়ারের নিয়ে তা পানির সাথে ভালোভাবে মিশিয়ে তরকারিতে দিছে দিন। একটু পরেই দেখবেন ঝোল অনেকটা ঝোল ঘন হয়ে এসেছে।

৫) রান্নার সময় বাঁচানোর টিপস

রান্না করতে করতে ক্লান্ত, সময় কোন দিকে হাড়িয়ে যাচ্ছে খুঁজে পাচ্ছেন না। হ্যাঁ রান্না একদমই সহজ কাজ না। আমাদের মায়াদের কিংবা রান্নায় যারা সাহায্য করে থাকে তাদের অনেক পরিশ্রম করতে হয়। তবে আমার জানা মতে মাংশ রান্না করতে সব চেয়ে বেশি সময় লাগে। এর অন্যতম কারন হচ্ছে মাংস ভালো ভাবে সিদ্ধ হতে বেশ সময় লাগে। তবে আপনি চাইলে মাংস রান্নার সময় বাঁচাতে পারেন। পরের দিন রান্নার জন্য মাংস সিদ্ধ এবং ঠান্ডা করে ফ্রিজে সংরক্ষণ করতে পারেন। এতে পরেরদিন আপনার সময় অনেকাংশে কমে যাবে।

৬) তরকারিতে অতিরিক্ত লবণ কমানোর উপায়

মনের ভুলে তরকারিতে দুইবার লবন দেওয়া অস্বাভাবিক বিষয় নয়। লবন ছাড়া যেমনি রান্না করে ফেলি তেমনি রান্নার সময় বেশি লবনও হয়ে যায়। তবে প্রশ্ন হচ্ছে তরকারিতে লবন বেশি হয়ে গেলে কি করবেন? মাছ,মাংস,ডিমের ঝোলে অনেকসময় লবণের পরিমাণ বেশি হয়ে যায়। এ সমস্যা থেকে সমাধানের উপায় হচ্ছে, তরকারিতে কয়েকটা সিদ্ধ আলু ছেড়ে দিন। ফলে দেখবেন লবণ অনেকাংশে কমে এসেছে।

৭) ঢাকনা ব্যবহার করা

ঢাকনা ব্যবহার এইটা আবার কোন টিপস হলো? ইয়েস ম্যাম/স্যারররররর! রান্নার সময় যতটুকু সম্ভব হাড়িতে বা কড়াইয়ে ঢাকনা ব্যবহার করা। এতে তরকারির পুষ্টিগুণ ঠিক থাকে। পাশাপাশি ঢাকনা ব্যবহার করলে তরকারি সিদ্ধ হতে অনেক কম সময় লাগে।

৮) ডালে হলুদ গুড়োর ব্যবহার

ডাল, যাতে রয়েছে প্রচুর প্রোটিন। একটি ডাল রান্না করার সময় ছোট একটি টিপস ডাল রান্নার সময় বাঁচানোর পাশাপাশি আরও মজাদার করে তুলতে পারে। রান্নার প্রথমেই হলুন গুড়ো ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। কারণ এতে ডাল সহজে সিদ্ধ হতে যায় না। তাই পরিমাণমত লবণ দিয়ে আগে ডাল সিদ্ধ করে নিন, তারপর হলুদ ব্যবহার করুন।

৯) রান্নায় সিরকার ব্যবহার

সিরকা যা আমাদের বেশিরভাগ মানুষের কাছে ভিনেগার নামেই পরিচিত। বাজারে বিভিন্ন কোম্পানির ভিনেগার পাওয়া যায়। আপনি চাইলে নিজেও বাসায় বসে ভিনেগার বা সিরকার তৈরি করতে পারেন। মুরগির মাংস বা কলিজা রান্নার সময় রান্নায় ১ টেবিল চামচ সিরকা ব্যবহার করলে এতে যেমন গন্ধ দূর হয় পাশাপাশি তেমনি খাবার সিদ্ধ হয় তাড়াতাড়ি।

১০) মাছ,মাংস চপিং করার পূর্বে করণীয়

কাঁচা মাছ বা মাংস ছুরি দিয়ে চপিং বোর্ডে কাটার আগে কিছুক্ষণ আগে থেকেই পানিতে ভিজিয়ে নরমাল করে নিন।

১১) রান্নার পরিকল্পনা করা

বাসায় মেহমান আসবে কিংবা অফিসে যেতে হয়। রান্নার সময় তাড়াহুড়ো লেগে যায় তাহলে এই রান্না টিপস টি অনুসরণ করুন। একটি সঠিক পরিকল্পনা আপনাকে এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। পরেরদিন কি রান্না করবেন তা যদি আগের দিন ঠিক করে রাখলে পরেরদিন অল্প সময়ে রান্না করা যায় আর অযথা দুশ্চিন্তায় পড়তে হয়না।

১২) ডিমের খোসা ছাড়ানোর নিয়ম

ডিম সিদ্ধ করার সময় লবণ ব্যবহার করুন। ডিম সিদ্ধ হওয়ার পর গরম অবস্থায় ডিমের খোসা ছাড়াবেন না কারণ এতে খোসায় লেগে ডিম নষ্ট হওয়ার সম্ভবনা থাকে। অবশ্যই ডিম ঠান্ডা হওয়ার পর খোসা ছাড়াবেন। চায়ের চামচ ব্যবহার করতে পারেন। একটু ফাটিয়ে চামচ দিয়ে ডিমের খোসার ভিতরের দিকে চামচ ঘোরান।

১৩) মাংসে বেরেস্তার ব্যবহার

এক স্বাদের মাংস খেয়ে বিরিক্ত হয়ে যাচ্ছেন? মাংস রান্না করার পর এর উপর পেঁয়াজ ভেজে বেরেস্তার করে দিলে খাবারের স্বাদ অনেক বেড়ে যায়।

১৪) মরিচ ভাজতে সাবধানতা

শুকনা মরিচ ভাজার সময় এক ধরণের ঝাঁজ তৈরি হয়। এর ফলে চোখে মুখে জ্বালা করে, হাচি আসে, কাশি আসে। এ ধরণের সমস্যা হাত থেকে বাঁচার জন্য রান্নাঘরের দরজা জানালা সব খুলে দিন অথবা প্র‍য়োজনে এডজাষ্টার ফ্যান চালিয়ে রাখুন।

১৫) ভাজিতে অতিরিক্ত তেল পড়লে করণীয়

অনেকসময় ভাজি করতে গিয়ে বেশি তেল ঢেলে পড়ে যায়। এসময় কড়াই বা প্যান একদিকে কাত করে কিছুক্ষণ রেখে দিবেন। এরপর ১৫/২০ মিনিট পর কাত করা অবস্থাতেই ভাজিগুলো বাটিতে তুলে ফেলবেন। আর কড়াই পড়ে থাকা বাড়তি তেল অন্য কোনো রান্নার কাজে ব্যবহার করতে পারেন।

১৬) লবণ গলে যাওয়া রোধ

আমরা জানি, বর্ষাকালে লবণ গলে এসে। এতে রান্নায় অনেক ঝামেলা পোহাতে হয়। এর জন্য এক মুঠো পরিষ্কার চাল পুটলি করে বেঁধে লবণের পাত্রে রাখলে লবণ গলবে না।

১৭) কাঁচের গ্লাস গরম জিনিস ঢালার নিয়ম

অনেকসময় কাঁচের গ্লাসে গরম দুধ বা পানি ঢাললে গ্লাস ফেটে যায়। তাই কাঁচের গ্লাসে গরম কিছু ঢালার আগে গ্লাসে ধাতু নির্মিত চামচ রেখে ঢালুন। এতে লক্ষ্য করে দেখবেন গ্লাস আর ফাটছে না।

১৮) কৌটায় বিস্কুট মচমচে রাখার উপায়

কৌটায় বিস্কুট সংরক্ষণ করার সময় কৌটায় সামান্য চিনি বা মোটা কাগজ রাখুন এতে বিস্কুট অনেকদিন মচমচে থাকবে।

১৯) সবজি টাটকার রাখতে করণীয়

কাঁচাকলা ও লেবু টাটকা রাখার জন্য প্রতিদিন অন্ততঃ এক ঘন্টা পানিয়ে চুবিয়ে রাখা উচিত। এতে কাঁচাকলা ও লেবু অনেকদিন টাটকা এবং ভালো থাকে।

২০) চাল ও ডালের পোকা থেকে মুক্তি

আমাদের অনেকেই চাল ডাল, ইয়াজ মরিচ একবারে কিনে রাখি। আবার গ্রামে যাদের ক্ষেতে নিজেদের ফসল জন্মায় তারা তো সারা বছরের জন্য চাল, গম, মরিচ, আদা, পিঁয়াজ সহ অন্যান্য ফসল ও মসলা সংরক্ষণ করে থাকে। তবে চাল ও ডালে পোকায় ধরা একটি কমন সমস্যা। তবে আপনি চাইলে প্রাকৃতিক উপায়ে চাল ও ডালের পোকা দমন ও এর থেকে মুক্তি পেতে পারেন। চাল ও ডালের কৌটায় কয়েকটি শুকনো মরিচ এবং শুকনো নিমপাতা রাখলে চাল, ডালে পোকা ধরে না।

২১) আলু ও আদা টাটকা রাখার টোটকা

আলু ও আদা পচনশীল দ্রব্য। তবে আপনি একটু সচেতন হলেই আলু ও আদা দীর্ঘ সময় সংরক্ষণ করতে পারেন। বালুর মধ্যে আলু, আদা ডুবিয়ে রাখলে অনেকদিন ভালো এবং টাটকা থাকে৷ সহযে পচন ধরে না।

২২) ফ্রিজের আঁশটে গন্ধ এড়াতে

ফ্রিজের মাছের গন্ধের সাথে আমরা সবাই ই মোটামুটি কম বেশি পরিচিত। ফ্রিজে দীর্ঘদিন মাছ রাখার ফলে ফ্রিজ থেকে আঁশটে এক ধরণের গন্ধ আসে। যা কিনা আপার বাসার পরিবেশ নষ্ট করে দিতে একাই একশো। এই গন্ধ দূর করার জন্যে ফ্রিজে এক টুকরো কাঠ কয়লা রেখে দিন অথবা লং ব্যবহার করুন দেখবেন ফ্রিজের আঁশটে গন্ধ ভাব আর নেই।

২৩) তেল ছিটলে করণীয়

মাছ বা তেলে অন্য কিছু ভাজতে গেলে তেল ছেটা একটি কমন বিষয়। তবে আপনি একটু চালাকি করলেই কিংবা এই রান্না টিপস ফলো করলে খুব সহজে এই ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। মাছ ভাজার সময় তেল ছিটলে একটু লবণ ছিটিয়ে দিন, দেখবেন তেল ছিটা বন্ধ হয়ে যাবে।

২৪) পেঁয়াজ ও আলুর পচনরোধ

পিয়াজ ও আলু একধরনের পচনশীল মশলা ও সবজি। আর যা কিনা আমাদের প্রতিদিনের রান্নার জন্যই প্রয়োজন হয়ে পরে। অনেককে পেঁয়াজ ও আলু একসাথে রাখতে দেখা যায়। পেঁয়াজ এবং আলু কখনোই একসাথে রাখবেন। কারণ এদের একসাথে রাখলে খুব দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। পিঁয়াজ নেটের ব্যাগে বেল্কুনিতে ঝুলিয়ে রাখলে অনেক দিন সংরক্ষন করা যায়। আলু ঠাণ্ডা ও হালকা বাতাস চলাচল করে এমন স্থানে ছড়িয়ে রাখলে আলু দীর্ঘদিনে ভালো রাখা সম্ভব।

প্রিয় ভিজিটর গৃহিণীদের রান্না টিপস নিয়ে আজকের মতো এখানে শেষ করছি। আপনার জানা গৃহিণীদের জন্য কোন রান্না টিপস জানা থাকলে শেয়ার করতে পারেন আমাদের সাথে।

বাংলা ভাষায় বিউটি টিপস, ফ্যাশন, মেকআপ, রান্না টিপস পড়তে নিয়মিত ভিজিট করুন আপনাদের প্রিয় টিপসওয়ালী ডট কম। সুস্থ থাকুন, নিরাপদে থাকুন।

লিখেছেন- মার্জিয়া লোবা

Spread the love

Leave a Reply