https://tipswali.com/wp-content/uploads/2021/03/Hair-Dryer-using-tips.jpg

গোসলের পর কিংবা দ্রুত ভেজা চুল শুকানোর জন্য হেয়ার ড্রায়ার মেশিন ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আজকাল গ্রাম শহর প্রায় সব খানানেই হেয়ার ড্রায়ারের ব্যবহার দেখা যায়। এক সময় মেয়েরা হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করতো। আজকাল ছেলেদের জন্যও হেয়ার ড্রায়ার পাওয়া যায়।

প্রিয় ভিজিটর, আজকের লেখা জুড়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করবো- হেয়ার ড্রায়ার কি, ব্যবহারের নিয়ম, টিপস, আপনার কি চুল শুকানোর মেশিন ব্যবহার করা উচিত নাকি উচিত না কিংবা এটি চুলের জন্য ক্ষতিকর না কি উপকারি।

হেয়ার ড্রায়ার কি?

(Hair Dryer) হেয়ার ড্রায়ার এর বাংলা অর্থ চুল শুকানোর মেশিন। হেয়ার ড্রায়ার মেশিন হচ্ছে এক প্রকার বিউটি টুলস যা কিনা চুল শুকানোর কাজে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। ছেলে ও মেয়ে উভয়ের চুল শুকানোর কাজে হেয়ার ড্রায়ার মেশিনের ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

হেয়ার ড্রায়ার দাম

বাজারে বিভিন্ন দামের হেয়ার ড্রয়ার মেশিন কিনতে পাওয়া যায়। পারফর্মেন্স ভেদে এর দামের পার্থক্য রয়েছে। বাংলাদেশের বাজারে একটি হেয়ার ড্রায়ার মেশিনের দাম ১৫০০ থেকে ৮০০০ টাকার মধ্যে।

হেয়ার ড্রায়ার মেশিন ব্যবহারের নিয়ম

চুল শুকাতে হেয়ার ড্রায়ার যত বেশি কার্যকর সঠিক ভাবে চুল শুকানোর মেশিনের ব্যবহার না জানলে এটি আপনার জন্য ততোটা ক্ষতির কারন হয়ে দাড়াতে পারে। এর ভুল ব্যবহার আপনার চুলের সৌন্দর্য নষ্ট করার পাশাপাশি আপনার মাথার চুল ঝরে যাওয়ার অন্যতম কারন হয়ে দাড়াতে পারে। নিচে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহারের সঠিক নিয়ম দেওয়া হলঃ

১) প্রথমেই আপনার চুল প্রস্তুত করুন

হেয়ার ড্রায়ার মেশিন ব্যবহারের পূর্বে আপনার চুল প্রস্তুত করে নিন। মনে রাখবেন চুলে হেয়ার ড্রায়ার মেশিন ব্যবহারের আগে চুল ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। চুল পরিষ্কার করতে অবশ্যই ভালো মানের শ্যাম্পু ও পরিষ্কার পানি ব্যবহার করুন। শ্যাম্পু ব্যবহারের পর কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। প্রতিদিন শ্যাম্পু করাও চুলের জন্য ক্ষতিকর।

২) তাওয়াল দিয়ে ভালো ভাবে চুল পরিষ্কার করুন

চুলে পানি থাকা অবস্থায় হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা যাবে না। এতে হিতের বিপরীত ঘটবে। আপনি চুল শুকানোর মেশিন ব্যবহার করেন আর নাই করেন। ভেজা চুল ভালো ভাবে তাওয়াল দিয়ে মুছে নিন। এবং এই কাজে অবশ্যই ভালো মানের সফট তাওয়াল ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। এবং তাওয়ালটিও নিয়মিত পরিষ্কার রাখুন।

৩) তাপ রক্ষাকারী বা হিট প্রটেক্টট্যান্ট ব্যবহার করুন

অরিরিক্ত তাপে চুল শুকালে আপনার চুলের বেহাল দশা সৃষ্টি হওয়া সময়ের ব্যপার মাত্র। হিট প্রটেক্টট্যান্ট আপনার চুলকে ড্যামেজ হওয়ার হাত থেকে বাঁচায়। তবে আপনি যে কোন হেয়ার প্যাক ব্যবহারের আগে ওই প্রডাক্ট ও এর ব্যবহার সম্পর্কে ভালো ভাবে জেনে নিন। বাজারে অনেক হিট রেসিস্ট্যান্ট চুল শুকানোর মেশিন কিনতে পাওয়া যায়। সেগুলো ব্যবহার করা উত্তম। আপনি যদি কোঁকড়া চুল স্ট্রেইট করতে চান তাহলে কোঁকড়া চুল স্ট্রেইট করার ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। তবে আমি মনে করি ন্যাচারল সব কিছুই উত্তম। তাই অযথা চুল সোজা করতে গিয়ে চুলের ক্ষতি হয়ে যেতে পারে।

৪) ক্লিপ ব্যবহার করে চুল গুলো একেক দিকে আটকে নিন

তাওয়াল দিয়ে চুল ভালো ভাবে মোছা হয়ে গেলে ক্লিপ এর সাহায্যে এক এক পাশের চুল আটকে নিন। এবং যে পাশের চুলে হেয়ার ড্রায়ার মেশিন ব্যবহার করবেন সেগুলো খোলা রাখুন। এতে করে আপনার হেয়ার ড্রায়ার মেশিন ব্যবহার করতে সুবিধা হবে।

৫) চুলে ব্রাশ করুন

এ পর্যায়ে আপনার কে চুলগুলো ক্লিপের সাহয্যে আটকান নাই। অর্থাৎ আপনার খোলা চুল গুলোতে ধীরে ধীরে  হেয়ার ব্রাশ ব্যবহার করে স্মুথ করে নিন। অন্যথায় পেচিয়ে পড়তে পারে। এই কাজে আপনি পাতলা চিরুনি ও আয়নার সাহায্য নিতে পারেন।

৬) হেয়ার ড্রায়ার এর সেটিং ঠিক করে নিন

আপনার চুলের জন্য একটি ভালো মানের চুল শুকানোর মেশিন কেনার করার চেষ্টা করুন। যেটিতে কিনা আলাদা আলাদা সেটিং রয়েছে। এবং সব চেয়ে ভালো হয়ে হিট রেসিস্ট্যান্ট হেয়ার ড্রায়ার মেশিন ব্যবহার করেন। হেয়ার ড্রায়ারে ঠাণ্ডা ও গরম দুই ধরনের বাতাস পাওয়া যায়। যদিও একটু বেশি সময় লাগে তবে সব সময় ঠাণ্ডা বাতাসে চুল শুকানোর চেষ্টা করুন।

৭) ডান হাত ব্যবহার করুন

আপনি যদি ডান হাত দিয়ে বেশি কাজ করে থাকেন তবে আপনি বাম হাতে আপনার চুল শুকানোর মেশিনটি রাখুন ও ডান হাতে চিরুনি দিয়ে চুল কনট্রোল করার চেষ্টা করুন। আর বাম হাতি হলে ডান হাতে চুল শুকানোর মেশিনটি রাখুন।

8) এক পাশের চুল দিয়ে শুরু করুন

উপরের দিকের চুল গুলো ব্রাশের সাহায্যে নিচের দিকে নামিয়ে নিয়ে আসুন। অনেকেই চুলের আগার দিক থেকে শুরু করে চুলের গোঁড়ার দিকে যাওয়ার চেষ্টা করে বা যায়। এতে আপনার চুলের ক্ষতি হয়। গবেষণায় দেখা গেছে এর ফলে চুলের কিউটিকল বন্ধ হয়ে যায়। চুল হয়ে ওঠে শুষ্ক ও রুক্ষ।

৯) নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখুন

চুল শুকাতে গিয়ে মুখের স্কিন কালো হয়ে যাচ্ছে? তাহলে আপনিও এই ভুলটি করছেন। আর তা হচ্ছে মুখের খুব কাছ থেকে হেয়ার ড্রায়ার মেশিন ব্যবহার করছেন। মাথার নুন্যতম ১২ ইঞ্চি দূর থেকে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করুন। হাতের কনু উপরের দিকে সোজা রেকে ব্যবহার করলে মাপটা সহজ হয়ে যাবে।

১০) চুরুনি বা হেয়ার ব্রাশ

চুলে হেয়ার ড্রায়ার মেশিন ব্যবহারের সময় একই সাথে চিরুনিও নিচের দিকে নামান। অর্থাৎ চিরুনির সাহায্যে চুলগুলো মাথার স্কিনের থেকে একটু উপরের দিকে তুলে চুলের গোঁড়া থেকে আগার দিকে চিরুনি নিয়ে আসুন। মাথার উপরের চুল গুলো চিরুনির সাহায্যে উপরেরে দিক থেকে আস্তে আস্তে পিছনে নিচের দিকে নামান। এই কাজে আপনি আয়নার সাহায্য নিন।

১১) হেয়ার স্প্রে ব্যাহার করুন

চুলে বাড়তি উজ্জ্বলতা আনতে চুলে হেয়ার স্প্রে ব্যবহার করুন। চকচকে চেহারার জন্য শাইন স্প্রে বা একটি ড্রপ শাইন সিরাম লাগাতে পারেন। সেরা ৫ টি হেয়ার স্প্রে পড়ুন এখানে।

১২) হেয়ার ড্রায়ার মেশিনটি গুছিয়ে নির্দিষ্ট স্থানে রেখে দিন।

ব্যবহার শেষ চুল শুকানোর মেশিনটি ভালো করে গুছিয়ে নির্দিষ্ট স্থানে রাখুন। অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে যায়গায় রাখছেন সেখানে ধুলা বালি কিংবা পিঁপড়া প্রবেশ না করে। না হলে পরবর্তীতে ব্যবহারের সময় আপনার চুলে এই ধুলা বালি জায়গা করে নিতে পারে।

চুল শুকাতে কি হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা উচিত?

বিশেষজ্ঞদের মতে প্রাকৃতিক ভাবে চুল শুকানো উত্তম। নিয়ম না মেনে বা সঠিক ভাবে হেয়ার ড্রায়ারের সাহায্যে চুল না শুকালে আপনার চুল রুক্ষ ও ঝরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়াও চুলের কিউটিকল বন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে সঠিক নিয়মে ও মঝে মাঝে হেয়ার ড্রায়ার বা চুল শুকানোর মেশিন ব্যবহার করে চুল শুকানো যেতে পারে।

হেয়ার ড্রায়ার ও ব্ল ড্রায়ার এর মধ্যে পার্থক্য (Hair Dryer VS Blow Dryer)

হেয়ার ড্রায়ার ও ব্ল ড্রায়ার উভয়ই চুল শুকানোর মেশিন। এর মূল পার্থক্য হচ্ছে, ব্রিটিশ চুল শুকানোর মেশিনকে ব্রিটিশরা হেয়ার ড্রায়ার Hair Dryer বলে থাকে আর আমেরিকানরা চুল শুকানোর মেশিনকে ব্ল ড্রায়ার Blow Dryer বলে থাকে।

প্রিয় ভিজিটর, আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। পরবর্তী কোন লেখায় বাংলাদশের বাজারে থাকা ভালো মানের কিছু হেয়ার ড্রায়ার ও এর দাম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করবো।

আরও পড়ুন সেরা ৫ টি চুল শুকানোর মেশিন ও এর দাম।

Spread the love

Leave a Reply