https://tipswali.com/wp-content/uploads/2021/12/download-voter-id.jpg

এখন অনলাইন থেকে খুব সহজেই নিজে নিজে ভোটার আইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করা যায়। তবে কিভাবে অনলাইন থেকে ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে হয় ও কিভাবে নতুন ভোটার আইডি কার্ড দেখবে তা অনেকেরই জানা নেই।

প্রিয় ভিজিটর, আজকের লেখাজুড়ে আপনাদের সাথে আমি শেয়ার করবো- কিভাবে খুব সহজেই অনলাইন হতে ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্র (NID Card) ডাউনলোড করা যায় বা নতুন আইডি কার্ড কিভাবে দেখবেন এবং কি কি তথ্য প্রয়োজন হবে। আর এ কাজটি করতে পারেন আপনার হাতে থাকা মোবাইল বা কম্পিউটারের মাধ্যমে বাসায় বসেই কোন প্রকার চার্জ বা ফি ছাড়া। ভোটার না হয়ে থাকলেঃ নতুন ভোটার হওয়ার নিয়ম

NID Card ডাউনলোড করতে যা যা প্রয়োজন

অনলাইন হতে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে যা যা প্রয়োজন সেগুলো হচ্ছে- ভোটার নিবন্ধন স্লিপ নং, জন্ম তারিখ, বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা, একটি সচল মোবাইল নাম্বার, ফেইস ভেরিফিকেশনের জন্য একটি স্মার্টফোন ও NID Wallet App।

অনলাইন হতে ভোটার আইডি কার ডাউনলোড করার নিয়ম

NID Card বা ভোটার আইডি কার্ড ডাউলোড করার জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরন করুন-

১) Download NID Wallate App

অনলাইন হতে ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার জন্য আপনাকে ফেইস ভেরিফিকেশন করতে হবে। আর এজন্য প্রয়োজন হবে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের NID Wallet মোবাইল App। গুগল প্লে স্টোরে লিখে সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন। ইন্সটল করে নিন। আপনি চাইলে কাজ চলাকালীন ও করতে পারেন।

২) বাংলাদেশ এনআইডি পোর্টালে একাউন্ট করুন ও লগ ইন করুন

লগ ইন করুন

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের এনআইডি পোর্টাল থেকে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য আপনার একটি একাউন্ট থাকতে হবে যদি একাউন্ট না থাকে তবে এই ঠিকানায় প্রবেশ করে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র বা ফরম স্লিপ নম্বর, জন্ম তারিখ, ও ক্যাপচা পূরণ করে সাবমিটে ক্লিক করুন।

৩) ঠিকানা দিন

https://tipswali.com/wp-content/uploads/2021/12/account-register-for-NID.png
আপনার ঠিকানা দিন

ভোটার ফর্ম পূরণের সময় দেওয়া তথ্য অনুযায়ী অস্থায়ী ও স্থায়ী ঠিকানার বিভাগ, জেলা, ও উপজেলা দিন এবং পরবর্তী বাটনে চপুন।

৪) মোবাইল নাম্বার ভেরিফিশন করুন

মোবাইল ভেরিফিকেশন করুন

ভোটার আইডি কার্ড করার জন্য আবেদন ফরম পূরণের সময়ে যে ফোন নাম্বার দিয়েছিলেন সেটি দেখাবে। যদি হারিয়ে যায় বা না থাকে তবে আপডেট করার জন্য আপডেট বাটনে ক্লিক করুন এবং সঠিক মোবাইল নম্বারটি প্রবেশ করুন। আপনার মোবাইলে ৬ সংখ্যার একটি কোড (OTP) যাবে। কোডটি সঠিক ভাবে বসিয়ে বহাল বাটনে ক্লিক করুন।

৫) বারকোড স্ক্যান করুন

বারকোড স্ক্যান করুন

সব ঠিক থাকলে আপনার সামনে একটি বার কোড দেখাবে। আপনার ফেস ভেরিফিকেশন করার জন্য ডাউনলোড করা অ্যাপটি ওপেন করে স্কিনে আসা বারকোডটি স্ক্যান করুন।

৬) ফেস ভেরিফিকেশন করুন

স্ক্যান সম্পন্ন হয়ে গেলে NID wallet অ্যাপ আপনার ক্যামেরার অনুমতি চাইবে Allow-তে ক্লিক করুন। এবং প্রথমে আপনার মুখের সামনের ভাগ, এর পড়ে একে একে ডান ও বাম পাশের ছবি তুলুন। মোবাইল সামনে ধরলে নিজে নিজেই হয়ে যাবে। একবারে না হলে আবার চেষ্টা করুন।

৭) পাসওয়ার্ড সেট করুন

পাসওয়ার্ড সেট করুন

ফেস ভেরিফিকেশনের পর আপনাকে আপনার একাউন্টের জন্য পাসওয়ার্ড সেট করার জন্য বলা হবে আপনি চাইলে এড়িয়ে যেতে পারেন।

৮) আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন

ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন

আপনি চূড়ান্ত পর্যায়ে চলে এসেছেন। এখানে আপনার নতুন ভোটার আইডি কার্ড তথ্যের সংক্ষিপ্ত বিবরণী ও ছবি দেখাবে। পাশে থাকা ডাউলোড বাটনে ক্লিক করে আপনার ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন। এটি পিডিএফ আকারে আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারে ডাউনলোড হবে।

সর্বশেষ

আশা করছি এখন আপনারা অনলাইন হতে নিজের ভোটার আইডি কার্ড নিজেই ডাউনলোড করতে পারবেন। নতুন আইডি কার্ড কিভাবে দেখেবেন এ নিয়ে আপনার কোন প্রশ্ন কিংবা পরামর্শ থাকলে শেয়ার করতে পারেন আমাদের সাথে। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।