https://tipswali.com/wp-content/uploads/2022/01/Femicon-pill.jpg

খাবার পিল একটি সহনীয় এবং কার্যকরী আধুনিক জন্মবিরতিকরন পদ্ধতি। বাংলাদেশেসহ বিশ্বের প্রায় সকল দেশেই জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতির জন্য ভিবিন্ন ধরণের পিলের ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। সল্পমাত্রায় জন্ম বিরতিকরনের জন্য বাংলাদেশে ফেমিকন পিলের বেশ সুনাম রয়েছে এবং বহুল ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। প্রায় প্রত্যেকটি ফার্মেসীতেই এই পিল কিনতে পাওয়া যায়।

সম্মানিত ভিজিটর, আজকের লেখাজুড়ে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করবো, ফেমিকন পিল কি, পিল খাওয়া নিয়ম, এটি কি কাজ করে, ফেমিকনের উপকারিতা, ঝুঁকি বা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, কখন খাওয়া উচিত না, দাম ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারতি।

Table of Contents

ফেমিকন পরিচিত

প্রিয় ভিজিটর, আপনারা অনেকেই ইতিমধ্যে জানেন ফেমিকন (Femicon Pill) আসলে কি। এটি হচ্ছে মূলত বাংলাদেশের এসএমসি কোম্পানির একটি ব্র্যান্ড। এটি মূলত একটি কম-ডোজের ওড়াল গর্ভনিরোধক পিল যা মহিলাদের শরীরের সাথে নমনীয়ভাবে মানিয়ে যায় এবং দম্পতিদের পরিবার পরিকল্পনা করতে সাহায্য করে। বিভিন্ন ধরণের সল্পমাত্রায় জন্মনিয়ন্ত্রণ পিলগুলোরে মধ্যে ফেমিকন অন্যতম।

ফেমিকন পিলের উপকরন

এক একটি সাদা পিলে রয়েছে নরজেস্ট্রেল ০.৩০ মিগ্রা., ইথালিন ইস্ট্রাডিওল ০.০৩ মিগ্রা., এবং এক একটি বাদামি পিলে রয়েছে ফেরাস ফিউমারেট ৭৫.০ মিগ্রা.।

ফেমিকন পিল খাওয়ার নিয়ম

একটি পাতায় মোট ২৮ টি পিল থাকে যেখানে ২১ টি সাদা বড়ি এবং ৭ টি লাল বড়ি থাকে। মেয়েদের মাসিক বা পিরিয়ড শুরু হওয়ার ১ম দিন বা ২য় দিন থেকে শুরু করে প্রতিদিন ১ টি করে টানা ২১ দিন সাদা বড়ি খাবেন। ২১ দিন শেষে অর্থাৎ ২২তম দিন থেকে লাল রঙের বড়ি খাওয়া শুরু করবেন। আপনারা যতদিন সন্তান নিতে না চান তাতো দিন পর্যন্ত নিয়মিত বড়ি খাবেন। সহবাস না করলেও নিয়মিত ফেমিকন পিল খাবেন। যখন বাচ্চা নিতে চান তখন থেকে এই পিল বা বড়ি খাওয়া বন্ধ করে দিন। কোন দিন ট্যাবলেট বা পিল খেতে ভুলে গেলে পরের দিন দুইটি বড়ি একসাথে খেয়ে নিন।

পিল খেতে ভুলে গেলে যা করবেন

আপনি যদি কোন দিন পিল খেতে ভুলে যান তাহলে পরদিন যখন মনে পরবে সেই সময়ে পিলতি খেয়ে নিবেন। পাশাপাশি নির্দিষ্ট সময়ে সেদিনের পিলটিও খেয়ে নিবেন। তবে পিরিয়ড নিয়মিত রাখার জন্য অবশিষ্ট পিলগুলো নিয়মিত খেতে হবে।

খাওয়ার উপকারিতা

ফেমিকন পিল খাওয়ার উপকারিতা হছে এটি দম্পতিদের সল্প মেয়াদে জন্মনিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। অর্থাৎ যারা বিয়ের পর অল্পদিনের মধ্যেই বাচ্চা নিতে চায় না এর জন্য এই ট্যাবলেট বা পিল খাওয়া হয়। এছাড়া পিল খেলে পিরিয়ড নিয়মিত হয় এবং মাসিকের সমস্যাগুলো অনেকাংশে কমে আসে।

ঝুঁকি বা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

সাধারণত ফেমিকন খাওয়ার তেমন কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। তবে কিছু কিছু মহিলাদের প্রথম পিল খাওয়া শুরুর পর কিছু স্বাভাবিক অসুবিধা যেমন- বমি ভাব, মাথা ঘোরা, মাথা ব্যাথা, পিল খাওয়াকালীন সময়ে পিরিয়ডের সাথে সামান্য রক্ত ফোঁটা আকারে বের হতে পারে। ২ থেকে ৩ মাস এভাবে চলতে থাকে এমন নিয়ে তেমন ঘাবড়ানোর কারণ নেই। তবে যাদের এই সমস্যা বেশি সময় থাকবে তাদের অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়ার জন্য অনুরোধ রইলো।

যে সময় পিল খাওয়া উচিত না

আপনি যদি গর্ভবতী হয়ে থাকেন তবে এই পিল খাওয়া বন্ধ রাখুন। আপনার বয়স ৪৫ বছরের বেশি হয়ে থাকলে খাওয়া বন্ধ করে দিন। এছাড়া হৃদরোগ, লিভারের সমস্যা, প্রচণ্ড মাথাব্যাথা, স্তনের ভিতরে শক্ত কিছু অনুভব করলে, ব্লাড প্রেসার বা উচ্চ রক্তচাপ, জন্ডিস থাকলেও ফেমিকন পিল খাওয়া উচিত না। এর ধরণের সমস্যা দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও উত্তর

ফেমিকন পিল কি?

Femicon মহচ্ছে একধরণের সল্পমাত্রায় জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল। মূলত যারা বিয়ের পর অল্প সময়ের মধ্যে বাচ্চা নিতে চায় না বা ইচ্ছুক নয় তার এই পিল সেবন করে থাকে।

ফেমিকন ট্যাবলেটের দাম কত?

এক প্যাকেট ফেমিকন ট্যাবলেটের দাম ৩০ টাকা।

সর্বশেষ

প্রিয় ভিজিটর, আপনারা যখন ফেমিকন ট্যাবলেট কিনবেন তখন এর প্যাকেটের মধ্যে খাওয়ার নিয়ম পেয়ে যাবেন। পিল খাওয়ার পর কোন সমস্যা দেখা দিলে মহিলা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।