https://tipswali.com/wp-content/uploads/2022/01/MM-Kit.jpg

আমাদের মধ্যে অনেকে বিয়ের পর অল্প দিনের মধ্যেই কোন সন্তান নিতে আগ্রহী না। যারা অল্পদিনের মধ্যে বাচ্চা নিতে আগ্রহী না তারা বা সেসকল দম্পতি ফেমিকন পিল গ্রহণ করে থাকে। কিন্তু অসাবধানতা বসত কেউ গর্ভবতী বা প্রেগন্যান্ট হয়ে গেলে মাসিক নিয়মিত করনের জন্য (সাধারণভাবে গর্ভপাতের জন্য) এম এম কিট গ্রহণ করা হয়।

সম্মানিত ভিজিটর, আজকের লেখাজুড়ে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো MM Kit বা এম এম কিট কি, খাওয়ার সঠিক নিয়ম বা কখন খেতে হয়, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, এম এম কিটের দাম, কোথায় কিনতে পাওয়া যায় ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত।

এম এম কিট কি?

অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভধারণ নষ্ট করে মেয়েদের বা মহিলাদের মাসিক নিয়মিত করার জন্য গর্ভধারণের ৬৩ দিন বা ৯ সপ্তাহের মধ্যে এম এম কিট গ্রহণ করা হয়। অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

Table of Contents

এম এম কিট খাওয়ার নিয়ম

এম এম কিট খাওয়ার আগে নিশ্চিত হয়ে নিতে হবে আপনার স্ত্রী বা আপনি (মেয়েদের বলা হয়েছে) আসলেই গর্ভবতী কিনা। এজন্য ফার্মেসী থেকে প্রেগন্যান্সি চেক করার কিট কিনতে পাওয়া যায় এর সাহায্যে ঘরে বসেই চেক করে নিন। প্রেগন্যান্সি চেক করার পর নিশ্চিত হয়ে গর্ভধারণের ৬৩ দিন অর্থাৎ ৯ সপ্তাহের মধ্যে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুসারে এই কিট সেবন করবেন।

একটি প্যাকেটে মোট ৫ টি ট্যাবলেট থাকে। যেখানে একটি বড় ও বাকি ৪ টি ছোট ছোট আকারের। ২০০ মি.গ্রা. বড় ট্যাবলেটটির নাম হচ্ছে মিফেপ্রিস্টোন এবং বাকি ৪ টি ট্যাবলেটের নাম হচ্ছে মিসোপ্রোস্টল।

MM Kit বা এম এম কিট খাওয়ার সঠিক নিয়ম হচ্ছে প্রথমে বড় ট্যাবলেটটি খাওয়ার ঠিক ২৪ ঘণ্টা পর বাকি ৪ টি ট্যাবলেট প্যাকেট থেকে বের করে মুখের মধ্যে দুই পাশের মাড়ি ও গালের মধ্যে দুইটি করে ট্যাবলেট রেখে আধাঘণ্টা বসে থাকুন যেন ট্যাবলেটগুলো গলে পেটের মধ্যে চলে যায়। মুখে থু থু আসলে ফেলে দেওয়া যাবে না। মুখের মধ্যে লেগে থাকলে পানি দিয়ে খেয়ে ফেলুন।

ওষুধগুলো সেবনের পর ১০ থেকে ১৪ দিনের মধ্যে ক্লিনিকে গিয়ে আলট্রাসনোগ্রাফির মধ্যমে নিশ্চিত হতে হবে গর্ভপাত হয়েছে কিনা। না হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

এম এম কিটের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

এম এম কিট খাওয়ার পর নানা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়ে থাকে। যেমন- জ্বর আসা, মাথা ব্যাথা করা, বমি আসা, বা বমি বমি ভাব, পেট ফাঁপা, শরীর দুর্বলতা, মাসিক ১৫ দিন পিছিয়ে যাওয়া, মাসিকে তুলনামূলক বেশি রক্তক্ষরণ, পেতে মোচড় ইত্যাদি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। তবে অনেকের কোন ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয় না। উপসর্গের মাত্রা বেশি হলে বা বেশি খারাপ অনুভব করলে দ্রুত ডাক্তারের শরণাপন্ন হন।

দাম

প্রতি ১ প্যাকেট এম এম কিটের দাম ৩০০ টাকা। যেখানে একটি পাতায় মোট ৫ টি ট্যাবলেট থাকে।

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও উত্তর

বাচ্চা বুকের দুধ খায় এমন অবস্থায় এমএম কিট খাওয়া যাবে?

অনেক সময় দুধের বাচ্চা থাকতে অসাবধানতা বসত প্রেগন্যান্ট বা গর্ভবতী হয়ে গেছেন এমন অবস্থায় MM Kit খাওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

মাসিক নিয়মিত না হলে কি করনীয়?

বিসেসজ্ঞা গাইনী ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

এম এম কিট খাওয়ার পর রক্ত বন্ধ হচ্ছে না কি করবেন?

অতিদ্রুত গাইনী চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

কত দিন পর সহবাস করা যাবে?

মাসিক নিয়মিত হওয়ার পর সুস্থ হওয়ার দুই দিন পর থেকেই সহবাস করা যাবে। তবে ব্লেডিং হলে সে অবস্থায় সহবাস করা যাবে না। তবে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

আরও পড়ুনঃ ফেমিকন পিল খাওয়ার নিয়ম।

কিছু কথা

আমাদের লেখা শুধুমাত্র বিবাহিত স্বামী স্ত্রীর জন্য। অসাবধানতা বসত গর্ভধারন করলে একান্ত সন্তান নিতে না চাইলে আপনারা উপরে উল্লেখিত পদ্ধতি অনুসরন করতে পারেন।

তবে জীবন ধ্বংস করা অনেক বড় অন্যায়। আমাদের সমাজের বর্তমানে যৌনতা খুবই ভয়াবহ ও মারাত্মক আকার ধারন করেছে। সাময়িক সুখের জন্য নারী পুরুষ বিবাহ বহির্ভূত অসামাজিক ও ধর্মে নিষিদ্ধ যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হচ্ছে আর সমাজের কাছে নিজেকে সাধু সাজাতে অনেকেই গোপনে বাচ্চা নষ্ট করে ফেলছে। মেয়েদের বলছি আপনার বয়ফ্রেন্ড যদি কোন অসামজিক ও নিষিদ্ধ কাজের জন্য বিবাহের আগে আপনাকে অনুপ্রাণিত করার চেষ্টা করে তার থেকে সাবধানে থাকুন। প্রয়োজনে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করুন। মনে রাখবেন যে আপনার সাথে পবিত্র বিবাহে আবদ্ধ না হয়ে এই ধরণের সুখ উপভোগ করতে পারে সে ভবিষ্যতে আপনাকে ফেলে অন্য কারো সাথে বা আপনাকে ঠকিয়ে অন্য মেয়েদের সাথেও এমন করবে বা করতে দ্বিধাবোধ করবে না। আর পরকালে কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। যদি অসচেতনা বসত বা ভুলে এমন কাজ করে থাকেন আল্লাহর কাছে মাফ চান। আল্লাহ মহান সঠিকভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করলে তিনি মাফ করবেন। আর ভবিষ্যতে এমন কাজ থেকে বিরত থাকুন।

সর্বশেষ

সম্মানিত ভিজিটর, আশা করছি এম এম কিট সম্পর্কে আপনার আপনাদের উত্তরগুলো পেয়ে গেছেন। কোন জিজ্ঞাসা থাকলে জিজ্ঞাস করতে পারেন আমাদের ফেসবুক পেজে। MM kit গ্রহনের পর কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বেশি মাত্রায় দেখা দিলে ও গর্ভপাত না হলে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিন। ওষুধ সেবনের আগে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন ও নিশ্চিত হয়ে নিন আপনি প্রেগন্যান্ট হয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ গর্ভবতী মায়েদের প্রতিদিনের খাবার তালিকা