https://tipswali.com/wp-content/uploads/2021/02/places-never-to-use-debit-or-credit-card.jpg

অনলাইন শপিং সময়ের জন্যতম জনপ্রিয় শপিং মাধ্যম। দুর্দান্ত অফার আর সময় বাঁচাতে অনেকেরই পছন্দ অনলাইন শপিং। ডেবিট কিংবা ক্রেডিট কার্ডের সহজলভ্যতার কারনে  অনেকের কাছে ডিজিটাল এই পেমেন্ট মাধ্যম পছন্দের। রেস্টুরেন্ট খাবার কেনা থেকে শুরু করে ষ্টেশনারীর দোকানে পেমেন্ট করতে ডেবিট কিংবা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করা যায়।

কিন্তু আপনি কি একবারও ভেবেছেন আপনি যাদের হাতে আপনার তথ্য তুলে দিচ্ছেন তাঁর কতটুকু নিরপদ। বা আপনার তথ্য তাদের কাছে কতটা নিরাপদ!

সাম্প্রতিক সময় ডেবিট কিংবা ক্রেডিট কার্ড থেকে টাকা উধাও হয়ে যাওয়ার খবর দৈনন্দিন নিউজে পরিনত হয়েছে। এর বেশিরভাগই ঘটে অনিরাপদ মাধ্যমে ডেবিট কিংবা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বিল প্রদানের কারনে। এছাড়াও অন্যান্য নানা ভাবেও তথ্য হাতিয়ে নেয়।

প্রিয় ভিজিটর আপনি একটু সতর্ক হলেই বেঁচে যেতে পারেন মহা বিপদ থেকে। আজকের লেখায় শেয়ার করতে যাচ্ছি, যেসকল জায়গায় ডেবিট কিংবা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকবেন বা থাকার চেষ্টা করবেন।

১) অনিরাপদ অনলাইন শপিং সাইট

অনলাইন পেমেন্টে ডেবিট কিংবা ক্রেডিট কার্ডে পেমেন্ট করলে মনকাড়া সব অফার পাওয়া যায়। অবাক করা বিষয় না? আমিও মাঝে মাঝে অবাক হয়ে যাই। মনে রাখতে হবে আপনি যখন কোন সাইটে সাইন-আপ করেন ওই সাইট আপনার ডাটা পরবর্তী মার্কেটিং এর কাজে ব্যবহার করে থাকে। এর কপাল খারাপ হলে বিক্রি করে দেওয়া তো সাধারন ইস্যু। যেখানে ফে[সবুক পর্যন্ত তথ্য বিক্রির দায়ে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন।

আমি কোন উদ্যোক্তাকে অসম্মান করে বলছি না। দিনে দিনে ব্যাঙের ছাতার মতো অনেক অনলাইন শপিং সাইট তৈরি হচ্ছে। সব অনলাইন শপিং সাইট নিরাপদ না। অনলাইনে বিল পেমেন্ট করার সময় অবশ্যই ভালো করে জানুন ওই সাইটটি বাজারে কতো দিন। তাদের নিয়ে পূর্বে এমন কোন নিউজ এসেছে কিনা।

২) গ্যাস পাম্পে ও সেলফ-চেক আউট

গ্যাস পাম্প হচ্ছে ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ড স্কামিং এর জন্য স্ক্যামারদের অন্যতম পছন্দের জায়গা এটি। এই সব জায়গায় মাসের পর মাস স্ক্যামিং ডিভাইস বসিয়ে রাখা কোন খুবই সিম্পল ব্যাপার। এই সকল ডিভাইসগুলো মূলত অনেক ছোট হওয়ায় অনেকেরই নজরে আসে না। আর এই সব ডিভাইস ব্যবহার করে খুব সহজেই অপরাধীরা আপনার তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে।

৩) খোলা জায়গার এটিএম বুথ কিংবা পে টার্মিনাল

অনেক সময় খেয়াল করবেন এটিএম বুথ থেকে টাকা তোলার জন্য রাস্তার পাশেই কিংবা কোন বিল্ডিং এর পাশ ঘেঁষে এটিএম বুথ বসানো হয়েছে। এই সকল জায়গা থেকে ডেবিট কার্ড বা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে টাকা উত্তোলন করা বেশ অনিরাপদ। আপনার অগোচরে গোপন ক্যামেরা হতে আপনার টাইপ করা পাস-ওয়ার্ড ব্যবহার করে আপনার একাউন্ট হতে অর্থ আত্মসাৎ করা সময়ের ব্যাপার মাত্র।

এছাড়া অনেক সময় দেখা যায়, খোলা আকাশের নিচে ফাস্ট-ফুডের দোকানে কার্ডে পেমেন্ট নেওয়া হয়। এই সকল জায়গাও ডেবিট কার্ড বা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বিল পেমেন্ট করার জন্য নিরাপদ না।

৪) সেল ফোন চার্জিং স্টেশন

আপনি হয়তো অনেক সময় দেখে থাকবেন বিশেষ করে বিমান বন্দর এলাকায়। আপনা ফোনে চার্জ না থাকলে আপনার কাছে থাকা ক্রেডিট কিংবা ক্রেডিট কার্ড সোয়াইপ করলে ফ্রিতে চার্জ দিতে পারবেন। এই ধরনের অনেক সাইটও রয়েছে যেখানে শুধু কার্ডের ইনফো দিয়ে সাউন আপ করলেই বা রেজিস্ট্রেশন করলে অনেক কিছু ফ্রি। তাহলে প্রশ্ন হচ্ছে কিসের বিনিময়ে কি দিচ্ছে। এর লাভ কি? হ্যাঁ, লাভ হিচ্ছে আপনাকে ফাঁদে ফেলে আপনার তথ্য হাতিয়ে নেওয়া। একে জুস জ্যাকিং ও বলা হয়ে থাকে।

৫) অ্যাপ

মোবাইল কিংবা কম্পিউটার এপ্লিকেশন ব্যহারের সময় অনেক সময় দেখতে পাওয়া যায় পপ-আপ নোটিফিকেশন যেখানে আপনাকে নানা প্রলোভন দেখানো হয়। আবার বলা হয় আপনার সাইটে একটি ভাইরাস পাওয়া গেছে ভাইরাস দূর করতে এখানে ক্লিক করুন। এই সকল সাইটের বেশিরভাগি স্ক্যাম। ইনফো দিলেন তো বিপদে পড়লেন। এর এডাল্ট সাইটতো স্ক্যামের আখড়া।

প্রিয় পাঠক/পাঠিকা, নিজে নিরাপদ থাকুন, অন্যকে নিরাপদ রাখুন। শেয়ার করুন আপনার প্রিয়জনদের মাঝে। বাংলা ভাষায় বিউটি টিপস, ফ্যাশন, রান্না টিপস পড়তে নিয়মিত ভিজিট করুন আপনাদের প্রিয় টিপসওয়ালী ডট কম। কপি করা হতে বিরত থাকুন। ধন্যবাদ।

Read more: Online Shopping Tips

Best Credit Card Provider in BD

Spread the love