https://tipswali.com/wp-content/uploads/2021/02/remve-Dark-Elbows-bangla-tips.jpg

আমাদের দেশের বিশেষ করে এশিয়ার বেশির ভাগ মেয়ে ও ছেলে বা পুরুষদের হাতের কনুই কালচে হয়ে থাকে। কনুইয়ের কালো দাগ দূর করতে বিভিন্ন ক্রিম, প্যাক ব্যবহার করতে করতে ক্লান্ত হয়ে শেষমেষ ফুলহাতার জামা হয়ে ওঠে প্রথম পছন্দ।

আপনিও কি কনুইয়ের কালো দাগ নিয়ে খুবই চিন্তা করছেন? আমাদের কনুইয়ে কালো দাগ প্রায় সবারই দেখা যায়। শত চেষ্টা করেও সাবান ঘষে কালো দাগ দূর করা যায় না। প্রিয় ভিজিটর আপনি চাইলে সম্পূর্ণ ঘরোয়া পদ্ধতিতে আপনার হাতের কনুইয়ের ও হাঁটুর কালচে দাগ দূর করতে পারেন কোন প্রকার ক্রিম বা ওষুধ ছাড়াই।

তো কথা না বাড়িয়ে একে একে চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে ঘরোয়া উপায়ে কনুইয়ের কালো বা কালচে দাগ দূর করা যায়. How to remove dark patches on elbows in Bangla. 

১. বেকিং সোডা ও লেবু

কনুইয়ের কালচে দাগ দূর করার অন্যতম একটি কার্যকরী উপায় হচ্ছে বেকিং সোডা ও লেবুর ব্যবহার। প্রথমে একটি লেবু স্লাইস করে কেটে তাতে এক চামচ বেকিং সোডা লাগিয়ে কনুইয়ে ঘষুন (আলতো করে) প্রায় ২ মিনিট। তারপর ১০-১২ মিনিট অপেক্ষা করার পর উষ্ণ পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এখানে লেবু তে রয়েছে ভিটামিন সি যা ত্বকের ব্রাইটনেস বাড়াতে সাহায্য করে এবং বেকিং সোডা ক্লিনজার হিসেবে কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে। প্রতি সপ্তাহ ১ বার ব্যবহার করা শ্রেয়। 

২. নিয়মিত শসা ব্যবহারে কনুইয়ের কালো দাগ দূর হয়

রুপচর্চায় শসার ব্যবহার বেশ লক্ষণীয়। চোখের নিচের কালো দাগ বা ডার্ক সার্কেল সুর করে শসা বেশ কার্যকরী। এছাড়া শসা শরীরের জন্যও অনেক উপকারী সেটা শরীরের বাহিরে হোক আর ভিতরে। শসা মরা কোষ দূর করতেও সাহায্য করে এবং মসৃণ-তা বজায় রাখে। ব্লিচিং বৈশিষ্ট্যগুলির কারণে, শসা অন্ধকার বা কালো হাঁটু এবং কনুই থেকে মুক্তি পাওয়ার সবচেয়ে কার্যকর উপায়গুলির মধ্যে একটি। শসা স্লাইস করে কেটে কনুইয়ে ১৫ মিনিটের জন্য ঘষলে মরা কোষ দূর হবে ও মইশ্চরাইজার হিসেবেও কাজ করবে। আপনি চাইলে এক চামচ লেবুর রস ও শসার সাথে মিক্স করে লাগিয়ে রাখতে পারেন। এটা দৈনন্দিন ব্যবহার করলে অল্প দিনের মধ্যেই আপনার হাতের কনুই কিংবা হাঁটুর কালচে দাগ দূর হয়ে যাবে।  

৩. আলুর রস

আলু শরীরের কালো দাগ দূর করতে ভীষণ সাহায্য করে। প্রতিদিন আলুর রস ব্যবহার এর ফলে স্কিনকে নরম করে ও তাড়াতাড়ি কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে। আলু কুচি করে কেটে অথবা গ্রিন্ডার দিয়ে কেটে সেটার রস বের করে কনুইয়ে মেখে ২০ মিনিট এর জন্য রেখে দিতে হবে। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে একটি মইশ্চরাইজার লাগিয়ে নিতে হবে। আলুতে ক্যাটাওলাস এনজাইম সমৃদ্ধ যা প্রাকৃতিকভাবে আপনার ত্বকের সুরকে হালকা করতে পারে। ব্রন দূর করেও আলুর রস বেশ কার্যকরী। জানুন কিভাবে ব্রন দূর করা যায়। 

৪. টমেটো ও কাঁচা দুধ

কনুইয়ের কালো দাগ দূর করতে টমেটো ও কাঁচা দুধ বেশ  ভালো কাজ করে। একটি টমেটো কেটে তাতে ২ চামচ কাচা দুধের সাথে ব্লেন্ডারে মিক্স করে থিক পেস্ট বানিয়ে কনুইয়ে ১৫মিনিট মাখিয়ে রেখে দিতে হবে। এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে ২ বার করলে ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে। টমেটো ত্বককে করে মসৃন এবং টমেটো এর সাথে কাচা দুধ ও ব্রাইটনেস আনতে সাহায্য করে।

৫. ওটস

ওটস আপনারা অনেকে খেতে পর্যন্ত চান না। কিন্তু অনেকের বাসায় এটা পরে আছে। তখন কি করবেন? এই ওটস দিয়ে আপনি চাইলে আপনার কনুইয়ের দাগ দূর করার জন্য ব্যবহার করতে পারবেন। ১ চামচ ওটসের সাথে ১ চামচ মধু, ১ চামচ দই ও ১ চামচ লেবু মিক্স করে তাতে স্ক্রাবের মত তৈরি করে ২০ মিনিট লাগিয়ে পানি দিয়ে ধুয়ে নিবেন। এই ওটসও আপনার স্কিন কে মইশ্চরাইজার হিসেবে কাজ করবে ও কালো দাগ দূর করবে।স্বাস্থ্যের জন্য প্রচুর উপকারের পাশাপাশি ওটমিল ত্রুটিহীন ত্বকের স্বর রাখার জন্য এটি একটি কার্যকর উপায়।

৬. চিনি ও অলিভ অয়েল কনুইয়ের কালো দাগ দূর করতে সক্ষম

চিনি বিশেষ করে স্ক্রাবের জন্য বেশ কার্যকর এবং অলিভ অয়েল স্কিনের মরা কোষ দূর করতে সাহায্য করে, স্কিন কে সফট করে।  আপনি চাইলে বেবি অয়েল ও চিনি ব্যবহার করতে পারেন। কারন বেবি অয়েলে আছে কেমোমাইল ও অলিভ অয়েল যা অলিভ অয়েলের কাজ এমনিতেই করবে। ১ চামচ চিনি ও ১ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মিক্স করে কনুইয়ে লাগিয়ে তাতে ১২ মিনিট ঘষতে হবে। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। চিনি এবং অলিভ অয়েল থেকে তৈরি একটি বাড়িতে স্ক্রাব পুষ্টি, হাইড্রেট এবং আপনার ত্বক থেকে মৃত কোষগুলি সরিয়ে দেবে।

৭. খাটি নারিকেল তেল

খাটি নারিকেল তেলে রয়েছে ভিটামিন ই ও ফ্যাটি এসিড যা ত্বককে পরিষ্কার করে ভিতর থেকে এবং কালো দাগ দূর করে। প্রত্যেক গোসল এর পর এই খাটি নারিকেল তেল কনুইয়ের কালো জায়গায় লাগালে সেই দাগগুলো  দূর হবে। এখন খাটি নারিকেল তেল চিনতে সমস্যা হলে তেল আধা ঘন্টার জন্য ফ্রিজে রেখে দেখবেন সেটি জমে কিনা, জমলে সেটি হল খাটি নারিকেল তেল।

৮. হলুদ

হলুদ হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রাকৃতিক উপাদান শরীরের জন্য। এটি শরীরের যেকোনো জায়গায় কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে। তবে হলুদের সাথে আরও কিছু প্রাকৃতিক উপাদান মিক্স করলে সেটি দূর করতে সাহায্য করে তাড়াতাড়ি। কনুইয়ের কালো দাগ দূর করার জন্য ১ চামচ হলুদগুড়া, ১ চামচ কাচা দুধ, ১ চামচ দারচিনি-গুড়া (ইচ্ছে) মিক্স করে পেস্ট বানিয়ে কনুইয়ে লাগিয়ে রেখে দিতে হবে যতক্ষণ না শুকাবে। শুকানোর পর সেটা ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।  এভাবে প্রত্যেক সপ্তাহে ২ বার করে করলে তাড়াতাড়ি ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে।এতে কার্কিউমিন নামে একটি যৌগ রয়েছে যা অন্ধকার জটিলতার জন্য দায়ী মেলানিনের অতিরিক্ত উৎপাদন হ্রাস এবং নিয়ন্ত্রণ করে।

কনুইয়ের কালো দাগ দূর করার অন্যান্য উপায়

উপরের ৮টি উপায়গুলো থেকে যেকোনো ১টি উপায় নিয়মিতভাবে প্রত্যেক সপ্তাহে ১-২ বার করলেই কনুইয়ের কালো দাগ দূর করা সম্ভব। মনে রাখতে হবে একবার দুইবার ব্যবহার করলেই সাথে সাথে আপনার কনুইয়ের কালো দাগ দূর হবে না। নিয়মিত করার চেষ্টা করুন। বেশি পরিমান পানি পান করুন। এছাড়া এলোভেরা জেল, কফি-গুড়া, ভিনেগার নানারকম উপাদান মিক্স করেও আমরা ঘরে বসে শরীরের যেকোনো কালো দাগ দূর করতে পারি। তাহলে আর হাজার হাজার টাকা খরচ করে স্কিন কেয়ার প্রডাক্ট ক্রয় করার প্রয়োজন কি? একটু সময় দিয়ে ঘরে বসেই প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে শরীরের যত্ন নেওয়া সম্ভব। 

বাংলা ভাষায় বিউটি টিপস, ফ্যাশন, মেকআপ টিপস পড়তে নিয়মিত ভিজিট করুন আপনাদের প্রিয় টিপসওয়ালী ডট কম। সুস্থ থাকুন নিরাপদে থাকুন।

— নাশিতা তাসনীম

Leave a Reply