https://tipswali.com/wp-content/uploads/2021/02/Foot-Cream.jpg

পা ফাটা বা গোড়ালি ফাটা সমস্যার সাথে আমরা সবাইই কম বেশি পরিচিত। পরিবারের বয়স্ক সদস্যদেরকে নাজেহাল করার জন্য এই একটি সমস্যাই যথেষ্ট। বয়সের সাথে সাথে এই সমস্যাটি গুরুতর রুপ ধারণ করে। কিন্তু আজকাল তরুণ প্রজন্মের মধ্যেও এই সমস্যাটি চোখে পড়ে।

পায়ের উপর ভর করে আমাদের সারাদিন চলতে হয়। আমাদের দেহের সম্পূর্ণ ভার পা-ই বহন করে। তাই পায়ের আলাদা যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। এছাড়াও শীতের সময় এই সমস্যা তীব্র আকার ধারণ করে। সর্বক্ষণ গোড়ালি উন্মুক্ত জুতা পরলেও এই সমস্যাটি সৃষ্টি হতে পারে। ধুলা-বালি, ময়লা আবর্জনা পায়ে লেগে থাকার পর, নিয়মিত পরিষ্কার না করলেও এই সমস্যাটি হতে পারে।

যতই দামী বা সুন্দর জুতা পরা হোক না কেন, ফাটা গোড়ালি আপনার সুন্দর, পরিপাটি লুককে নষ্ট করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। তাই এই সমস্যাটি যত দ্রুত পারা যায় নিরাময়ের ব্যবস্থা করা দরকার। 

গোড়ালির ত্বক আমাদের দেহের অন্যান্য অঞ্চলের ত্বকের তুলনায় পুরু ও মোটা হওয়ায়, এর বিশেষ যত্ন নিতে হয়। পায়ের ত্বককে মইশ্চারাইজ ও হাইড্রেটেড রাখতে নিয়মিত কিছু পদ্ধতি মেনে চললে ও প্রোডাক্ট ব্যবহার করলে এই সমস্যাটির সম্মুখীন হতে হয় না। কিন্তু পা একবার ফেটে যেতে শুরু করলে, দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা জরুরি।

পা ফাটা দূর করার জন্য বাজারে বিভিন্ন ধরনের ওষুধ ও ক্রিম পাওয়া যায়। তবে সব ধরনের ক্রিম ও ওষুধ পা ফাটা দূর করতে কার্যকরী না। আজকের লেখায় চলুন জেনে নেওয়া যাক পা ফাটা বা গোড়ালি ফাটা প্রতিকারে কি কি ক্রিম ব্যবহার করা যায়-

১) বারট’স বিজ কোকোনাট ফুট ক্রিম – পা ফাটা দূর করতে সবচেয়ে কার্যকরী

পা ফাটা রোধে এই ক্রিমটি এক যুগ ধরে জি এইচ বিউটি এডিটর ও ব্যবহারকারীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে। এতে রয়েছে জলপাই, নারকেল, ওট, সয়াবিন ইত্যাদি বোটানিক্যাল অয়েলের গভীর নরিশিং ফরমুলা। এটি পায়ে ম্যাসাজ করলে বা মোজার নিচে ব্যবহার করলে তাৎক্ষনিকভাবে পায়ের গোড়ালি ফাটা, রুক্ষ ও শুষ্ক ত্বকের সমস্যার নিরাময় হয়। এটির স্নিগ্ধ, মিষ্টি নারকেলের সুগন্ধ, রিচ ফরমুলা পায়ের শুষ্ক ত্বক ও গোড়ালি ফাটা দূর করে নিমিষেই।

২) ডঃ টিলস শিয়া এনরিচড ফুট ক্রিম (Dr. Teal’s Shea Enriched Foot Cream)

উচ্চ মানের হাইড্রেটিং উপাদান, যেমন, ত্বক রিপেয়ারিং ফ্যাটি এসিড ও শিয়া বাটারের সমন্বয়ে তৈরি এই ক্রিমটি শুষ্ক, রুক্ষ, ফাটা ও ব্যথাদায়ক ত্বককে নিমিষেই করে তোলে মোলায়েম, নরম ও হিলিং। এটি সাশ্রয়ী ও এফেকটিভ। এটি ডায়াবেটিক ফিটের উপরও ভালো কাজ করে।

৩) ওকিফস হেলদি ফিট ফুট ক্রিম (O’Keeffe’s Healthy Feet Foot Cream)

ফ্যাটি এসিড ও প্যারাফিনের সমন্বয়ে গঠিত এই ক্রিমটি অ্যামাজনের টপ রেটেড ক্রিম। এটি বহুদিনের ফাটা গোড়ালির সমস্যা সমাধান করে মাত্র ৪ সপ্তাহে। এটি রুক্ষ, ফাটা ও ক্যালুসড গোড়ালিকে করে তোলে নরম ও উজ্জ্বল। পা ফাটা থেকে রক্ষা পেতে আপনি ওকিফস হেলদি ফুট ক্রিমটি ব্যবহার করতে পারেন। 

৪) সেরাভ রিনিউয়িং এস এ ফুট ক্রিম (Cerave Renewing SA Foot Cream)

এতে রয়েছে সেলিসাইলিক এসিড, যা পায়ের মৃত কোষকে দূর করে। সেরামাইডস,লিপিডের সমন্বয়ে তৈরি এই ফরমুলাটি ফ্রাগরেন্স ফ্রি। এই ক্রিম রুক্ষ, শুষ্ক, ডিহাইড্রেটেড স্কিনের সমস্যা দ্রুত সমাধান করে।

৫) অ্যামলাকটিন ফুট রিপেয়ার ফুট ক্রিম থেরাপি (Amlactin Foot Repair Foot Cream Therapy)

ল্যাকটিক এসিড, আলফা হাইড্রক্সি এসিডের এক্সফলিয়েটিং ও অ্যান্টি এজিং ফরমুলা মৃত কোষের বিরুদ্ধে কাজ করে ও নতুন কোষ সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখে। এটি পায়ের ত্বককে করে তোলে সফট, স্মুথ ও ইয়াঙ্গার লুকিং। এটি ব্যবহার করে ঘরে বসেই পেতে পারেন পেডিকিউরের মত নরম, মোলায়েম ও উজ্জ্বল ত্বক।

৬) বেয়ারফুট সাইনটিস্ট স্লিপ অন ইট অভার নাইট মইশ্চারাইজিং জেল সকস (Barefoot Scientist Sleep On It Overnight Moisturizing Gel Socks)

এই সকস আপনাকে দেবে রিচ শিয়া বাটার ও ভিটামিন ই এর মত মইশ্চারাইজিং ও নরিশিং অনুভুতি। এটি একধরণের ক্রিম ও জেল যুক্ত মোজা। এটি ঝামেলাবিহীনভাবে রাতে ঘুমানোর সময় বা বাড়িতে রেগুলার কাজের সময় পরিধান করলেই পায়ের স্কিন কেয়ার ট্রিটমেন্ট হবে, যা আপনাকে দেবে নরম, কোমল ত্বক। এটি পরিষ্কার করাও ঝামেলামুক্ত, এটি ড্রাই ক্লিন কিংবা মৃদুভাবে হ্যান্ড ওয়াশ করা যাবে।

৭) ইউসেরিন অ্যাডভান্সড রিপেয়ার ফুট ক্রিম (Eucerin Advanced Repair Foot Cream)

স্মুথিং লাকটিক এসিড ও নরিশিং ফ্যাটি এসিড দিয়ে তৈরি এই প্রোডাক্টটি পায়ের রুক্ষ, শুষ্ক, ফাটা ত্বকে দেবে ইনস্টান্ট মোলায়েমভাব। এটি ফাটা ত্বককে সিল্কি স্মুথ করে তোলে মাত্র এক দিনের মধ্যেই। এটি রাফ, ড্যামেজড ক্যালুস, শুষ্ক ও ফ্লাকি স্কিনকে নিমিষেই নরম ও কোমল করে তোলে।

৮) ওয়েলেডা স্কিন ফুড অরিজিনাল আলট্রা রিচ ক্রিম (Weleda Skin Food Original Ultra Rich Cream)

বোটানিক্যাল অয়েল ও বি অয়াক্স বেসড এই ফরমুলাটি মাথা থেকে পা পর্যন্ত যেকোনো ত্বকে ব্যবহার করা যাবে। এটির সুগন্ধ ত্বককে এনারজাইজড করে ও রিলাক্সড করে। এটি মুখে কিংবা পায়ের ত্বকের শুষ্ক ও চুলকানিভাব নিরাময় করে।

৯) অ্যাভেডা ফুট রিলিফ ফুট ক্রিম (Aveda Foot Relief Foot Cream)

কুলিং মেনথল ও মিন্ট দিয়ে তৈরি এই ফুট ক্রিমটি নরডস্ত্রোমে ব্যবহারকারীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে। এতে আরো রয়েছে ক্যাস্টর, জোজোবা, রোজমেরি, ল্যাভেন্ডার, সানফ্লাওয়ার, টি ট্রি, আপেল, গ্রিন টি, উইলো বারক ও কমলার এক্সট্র্যাক্ট ও উদ্ভিজ্জ তেলের সমাহার। মাত্র একবার ব্যবহারেই এটি দেয় স্পা এর মত রেজাল্ট।

১০) আরম অ্যান্ড হ্যামার হিলস অ্যান্ড ফিট মইশ্চারাইজার প্লাস জেন্টেল এক্সফলিয়েটর (Arm And Hammer Heels and Feet Moisturizer Plus Gentle Exfoliator)

এটিতে বিদ্যমান গ্লাইকলিক এসিড রাফ, ফ্লাকি ফুট স্কিন ও মৃত স্কিন সেলস দূর করে। এটি গোড়ালি ও পায়ের পাতায় আলতো করে স্ক্রাবিং করে ব্যবহার করতে হয়।

১১) আহাভা ডেড সি মিনারেল ফুট ক্রিম (Ahava Dead Sea Mineral Foot Cream)

অ্যালো, মেনথল, অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল টি ট্রি অয়েল ও এক্সফলিয়েটিং সালিসাইলিক এসিডের সমন্বয়ে তৈরি এই প্রোডাক্টটি স্পা এর মত ট্রিটমেন্ট দেয়। এটি ব্যবহারে কঠিন, শুষ্ক ও ফাটা ত্বক হয়ে যায় শিশুদের ত্বকের মত নরম, কোমল ও মোলায়েম।

১২) অ্যাভিনো রিপেয়ারিং সিকা ফুট মাস্ক (Aveeno Repairing Cica Foot Mask)

এটি একধরণের শিট মাস্ক যা শিয়া বাটার, গ্লিসারিন ও ওট অয়েলের সমন্বয়ে তৈরি। এটি ডিসপজেবল অর্থাৎ একটি শিট একবার ব্যবহার করা যায়। এটি পায়ের ত্বককে এতই নরম, হাইড্রেটেড ও মইশ্চারাইজ করে যেন মনে হয় স্পা পেডিকিউর করা হয়েছে।

১৩) ফুট ন্যানি টি ট্রি ফুট ক্রিম (FootNanny Tea Tree Foot Cream)

জাসমিন, রোজ, ল্যাভেন্ডার ও টি ট্রি কামিং অ্যারোমা ও সেন্ট পায়ের ত্বককে স্পা এর মত ট্রিটমেন্ট দেয়। এতে বিদ্যমান কোকোয়া, শিয়া বাটার, ভিটামিন ই ও টি ট্রি অয়েল ত্বককে নরিশ করে ও ব্যাকটেরিয়া দূর করে নরম ও কোমলতা দেয়।

১৪) গ্লাইটোন আলট্রা সফটেনিং হিল অ্যান্ড এলবো ক্রিম (Glytone Ultra Softening Heel And Elbow Cream)

গ্লাইটোন ক্রিম ও গ্লাইকোলিক এসিড জেদি পা ফাটার সমস্যার বিরুদ্ধে কাজ শুরু করে দেয় নিমিষেই। এটি কনুইেও ব্যবহার করা যায়। এটির নিয়মিত ব্যবহার রুক্ষ, শুষ্ক, ফাটা ত্বককে নরিশ করে, রিপেয়ার করে, উজ্জ্বল করে ও মসৃণতা দেয়।

উপরোক্ত প্রোডাক্টগুলি নিয়মিত ব্যবহার আপনার রুক্ষ, ফাটা গোড়ালির সমস্যাকে নিমিষেই দূর করবে।  এছাড়া গোসলের সময় ধুন্দলের খোসা দিয়ে ও সাবান দিয়ে গোড়ালি নিয়মিত পরিষ্কার করতে পারেন। গোড়ালি নরম রাখতে নিয়মিত মইশ্চারাইজ করুন বা ক্রিম লাগান। নারকেল তেল, আমন্ড তেল বা সরষের তেল লাগাতে পারেন। ফুট মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। গোড়ালি পরিষ্কার করে তোয়ালে দিয়ে আলতো করে পা পরিষ্কার করে নিতে হয়। 

পা ফাটে কোন ভিটামিনের অভাবে?

মূলত ভিটামিন-বি৩ এর অভাবে পা ফাটে। অর্থাৎ আপনার প্রতিদিনের খাবার তালিকায় পর্যাপ্ত ভিটামিন-বি৩ না থাকলে আপনার পা ফাটার অন্যতম কারন হতে পারে। ভিটামিন-বি৩ এর পাশাপাশি ভিটামিন-এ এর অভাবেও পা ফাটে। এছাড়াও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন ও স্বাস্থ্যকর খাদ্য অভ্যাস পালন না করা, কেননা এই অভ্যাস আপনার পা সহ সব অঙ্গের ত্বককেই করবে নরম ও উজ্জ্বল। 

সম্মানিত ভিজিটর বাংলা ভাষায় বিউটি, হেলথ, ফ্যাশন টিপস পড়তে নিয়মিত ভিজিট করুন আপনাদের প্রিয় টিপসওয়ালী ডট কম।

Spread the love

Leave a Reply